একবার হলেও দেখে আসুন রংপুরের 'ভিন্নজগত'

দেখা হয় নাই 15th May 16 at 7:50am 3,414
Googleplus Pint
একবার হলেও দেখে আসুন রংপুরের 'ভিন্নজগত'

এই নিরন্তর কোলাহলের শহর ছেড়ে দু'দণ্ড চাপমুক্ত থাকতে বেরিয়ে পরতে পারেন কোথাও। আর তা হতে পারে উত্তরবঙ্গের ভিন্নজগতে। অত্যাধুনিক পিকনিক স্পট, বিনোদন কেন্দ্র যাই বলুন না কেনো, একবার দেখে আসতে পারেন রংপুরের এই ভিন্নমাত্রার 'ভিন্নজগত'। রংপুর বিভাগের সবচাইতে বড় পিকনিক স্পট এটি। নগর জীবনের কোলাহল ছেড়ে রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার খলেয়া ইউনিয়নের গঞ্জিপুর গ্রামে এর অবস্থান।

বেসরকারিভাবে প্রায় ১০০ একর জমির ওপর গড়ে ওঠা এই বিনোদন কেন্দ্রটি সারাক্ষণ নানা জাতের পাখির কোলাহলে মুখরিত থাকে। এর গাছে গাছে দেখা যায় নানা প্রজাতির পাখি। সন্ধ্যা হলেই তারা তাদের নীড়ে ফিরে আসে। ভিন্নজগতে শোভা পাচ্ছে দেশি-বিদেশি হাজারও গাছ। এখানে দর্শনার্থীরা গাছের ছায়ায় সারাটা দিন ঘুরে বেড়াতে পারেন। ভিন্নজগতের প্রধান ফটক পার হলেই তিন দিকের বিশাল লেকঘেরা নয়নাভিরাম দৃশ্য দেখা শেষ হলেই সামনে পড়বে লোহার একটি ব্রিজ। ব্রিজটি পার হলেই ভিন্নজগতের ভেতর যেন আরেক জগত।

এখানে রয়েছে দেশের প্রথম প্লানেটোরিয়াম। রয়েছে রোবট স্ক্রিল জোন, স্পেস জার্নি, জল তরঙ্গ, সি প্যারাডাইস, আজব গুহা, নৌকা ভ্রমণ, শাপলা চত্বর, বীরশ্রেষ্ঠ এবং ভাষা সৈনিকদের ভাস্কর্য, ওয়াক ওয়ে, থ্রিডি মুভি, ফ্লাই হেলিকপ্টার, মেরি গো রাউন্ড, লেক ড্রাইভ, সুইমিং পুল স্পিনিং হেড, মাছ ধরার ব্যবস্থা। একই সঙ্গে রয়েছে অন্তত ৫০০টি পৃথক দলের পিকনিক করার ব্যবস্থা। শুধু ভেতরেই রয়েছে অন্তত ৮০০ থেকে ৯০০ গাড়ি পার্কিংয়ের সুবিধা। কটেজ রয়েছে ৭টি। রয়েছে থ্রি-স্টার মডেলের ড্রিম প্যালেস।

জলাশয়ে রয়েছে নৌকা ভ্রমণের সুবিধা। শিশুদের জন্য রয়েছে ক্যাঙ্গারু, হাতি, ঘোড়াসহ নানা জীবজন্তুর মূর্তি। ভিন্নজগতের জলাশয়ের চারপাশে রয়েছে পরিকল্পিতভাবে লাগানো নানা জাতের শোভা বর্ধনকারী গাছ। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন, বাস, মাইক্রো বাস, মোটরসাইকেল, রিকশা, অটোরিকশাসহ বিভিন্ন যানবাহনে করে প্রচুর মানুষ বেড়াতে আসেন এখানে। উত্তরাঞ্চলের অন্যান্য বিনোদন কেন্দ্রের চেয়ে এই বিনোদন কেন্দ্রে নিরাপত্তা থেকে শুরু করে সব কিছুই ভালো। ভিন্নজগতে থাকা-খাওয়ারসহ সব ধরনের ব্যবস্থা রয়েছে।

প্রবেশ মূল্য
ভিন্নজগতের প্রবেশ মূল্য ২০ টাকা। এছাড়া ভেতরের প্রতিটি রাইডের জন্য আলাদা করে ৫ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত দিতে হয়। দর্শনার্থীদের থাকার জন্য আমাদের নিজস্ব একটি প্যালেস রয়েছে। যার কক্ষগুলো অত্যাধুনিক। এখানে রাত্রিযাপন ও খাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। দামও খুব একটা বেশি নয়।

যেভাবে ভিন্নজগতে যাবেন
ঢাকার মহাখালী, কল্যাণপুর, মোহাম্মদপুর এবং গাবতলী থেকে রংপুরগামী বেশ কয়েকটি বিলাসবহুল এসি ও ননএসি বাস রয়েছে। এসব বাসের ভাড়া ৫০০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকার মধ্যে। এছাড়া কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে রংপুর এক্সপ্রেস সোমবার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৯টায় রংপুরের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। রংপুরে ট্রেন ভাড়া ২০০ থেকে ৭০০ টাকা। ঢাকা থেকে রংপুর আসতে সময় লাগবে সাড়ে ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা। ট্রেনে লাগবে ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা।

রংপুর থেকে সরাসরি ভিন্নজগতে যাওয়ার জন্য গাড়ির ব্যবস্থা রয়েছে। এক্ষেত্রে প্রাইভেটকারের ভাড়া ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা এবং মাইক্রোবাসের ভাড়া ৮০০ থেকে ১ হাজার টাকা। এছাড়া সৈয়দপুর দিনাজপুরের গাড়িতে চড়েও ভিন্নজগতে যাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে নামতে হবে রংপুরের পাগলাপীর বাসস্ট্যান্ডে। এছাড়া রংপুর থেকে জলঢাকাগামী গাড়িতে ভিন্নজগতে যেতে পারবেন। সেখান থেকে ১০০ থেকে ১৫০ টাকায়, ব্যাটারিচালিত ইজি বাইকে করে ১৫ থেকে ২০ মিনিটের মধ্যে যাওয়া যায় ভিন্নজগতে।

কিছু সমস্যাও আছে, যেমন-
পাগলাপীর বাসস্ট্যান্ড থেকে ভিন্নজগত যেতে ২ কিলোমিটার দীর্ঘ যে সড়কটি রয়েছে তা একবারেই চলাচলের অনুপযোগী। বৃষ্টিতে সড়কের ইট-সুড়কি উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টির হয়েছে। ১০ ফুট চওড়া এই সড়ক দিয়ে ২টি গাড়ি ঠিকমতো চলতে পারে না। অনেকের অভিযোগ, এছাড়া এখানে থাকার জন্য যেসব হোটেল রয়েছে তার ভাড়াও অনেক বেশি। ভিন্নজগতে বেড়াতে আসা লোকজনের অভিযোগ, ভাত থেকে শুরু করে যেসব জিনিস এখানে পাওয়া যায় তার দাম বাইরের চেয়ে অনেক বেশি, আবার মানও খারাপ।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 327 - Rating 1 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)