বিশ্বকাপ যাঁদের বাজার দর বাড়িয়ে দিয়েছে

ফুটবল দুনিয়া 20 Jul 2018 at 8:06pm 405
Googleplus Pint
বিশ্বকাপ যাঁদের বাজার দর বাড়িয়ে দিয়েছে

বিশ্বকাপ শেষ। এখন পালা ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের। তবে তাঁর আগে শুরু হয়েছে ক্লাবগুলোর দল বদল। খুলে গেছে ট্রান্সফার মার্কেট। আর এবার ট্রান্সফার মার্কেটে বিশ্বকাপে ভালো করা খেলোয়াড়দের দিকে আলাদা নজর থাকবে প্রতিটি দলের।

একদিকে বিশ্বকাপে বাজে খেলার কারণে অনেক বিশ্বকাপানো খেলোয়াড়ের বাজার দর কমে গেছে। তেমনি বিশ্বকাপে উজ্জ্বল নৈপুণ্যের জন্য ট্রান্সফার মার্কেটে বাজার দল বেড়েছে অনেক খেলোয়াড়ের। বিশ্বকাপের ভালো পারফরম্যান্স যেসব খেলোয়াড়ের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে, আসুন তাঁদের সমন্ধে জেনে নেই—

এডেন হ্যাজার্ড

বিশ্বকাপের আগে খুব বেশি আলোচনায় ছিলেন না। কিন্তু বিশ্বকাপে বেলজিয়ামকে করেছেন তৃতীয়। নিজে তিন গোলের পাশাপাশি করেছেন দুই অ্যাসিস্ট। একই বিশ্বকাপের সবচেয়ে বেশি ‘ড্রিবল’ও তাঁর। আর তাই ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোড় শূণ্যস্থান পূরণে তাঁর দিকেই হাত বাড়িয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। এখন তাঁর বর্তমান ক্লাব চেলসি ও রিয়ুয়াল মাদ্রিদের মধ্যে দর-কষাকষি চলছে। আর চেলসি দামটাও চাচ্ছে বেশ চড়া!

থিবো কর্তোয়া

হ্যাজার্ডের ক্লাব এবং জাতীয় দলের সতীর্থ থিবো কর্তোয়া। রাশিয়া বিশ্বকাপে বাগিয়ে নিয়েছেন সেরা গোলদাতার পুরস্কার ‘গোল্ডেন গ্লাভস’। আর তার দিকেও হাত বাড়িয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। শোনা যাচ্ছে কর্তোয়া এবং হ্যাজার্ডেরে জন্য চেলসি ২০০ মিলিয়ন ইউরো ‘ডাবল ডিল’ অফার করেছে রিয়ালকে।

থমাস মুনিয়ে

বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের জন্য সবচেয়ে বড় টোটকা ছিলেন থাম মুনিয়ে। এক গোল ও দুই ‘অ্যাসিস্ট’ করেছেন বিশ্বকাপে। কিন্তু বড় দলগুলো তাঁকে এখনই কিনতে চাইছে না। কারণ এখন মুনিয়েকে কিনতে চাইলেই পকেট থেকে খসাতে হবে বড় অঙ্কের অর্থ।

দেনিস চেরিশেভ

চেরিশেভ বিশ্বকাপে করেছেন চার গোল করে। রাশিয়াকে তুলেছেন শেষ ষোলোতে। এতে তাঁর দামও আকাশ ছুঁয়েছে! আর তাই ভিলারিয়ালের কাছে চেরিশেভ এখন সোনার ডিমপাড়া হাঁস।

হ্যারি ম্যাগুইয়ার

হেডে গোল দিয়ে ইংল্যান্ডকে শেষ চারে তুলেছেন হ্যারি ম্যাগুইয়ার। লেস্টার সিটি যখন তাঁকে কিনেছিল, তখন তাদের মাত্র ১৭ মিলিয়ন খয়রচ হয়েছিল। কিন্তু এখন তাঁকে কিনতে হলে কমপক্ষে ৫০ মিলিয়ন খরচ করতে হবে যেকোনো দলকে।

ইয়েরি মিনা

৩ গোল করে কলম্বিয়াকে শেষ ষোলোতে তুলেছিলেন ইয়েরি মিনা। দল সামনে গেলে দেখাতে পারতেন নিজের ঝলক। তাই বার্সেলোনা থেকে তাঁকে কিনতে গেলে বড় অঙ্কের চেক লিখতে হবে।

বেঞ্জামিন পাভার

বেঞ্জামিন পাভার এখন বিশ্বকাপজয়ী! আর্জেন্টিনার বিপক্ষে তাঁর করা গোলটা বিশ্বকাপের সেরা গোলগুলোর মধ্যে একটি। তাই পাভারকে কিনতে চাইলে বিশাল অঙ্কের অর্থই খরচ করতে হবে।

দোমায়গ ভিদা

বিশ্বকাপের আগে ভিদা ফ্রিতে ছিলেন বেসিকতাসে। কিন্তু বিশ্বকাপে দলকে ফাইনালে তোলার ক্ষেত্রে রেখেছে দারুণ অবদান। সব মিলিয়ে তাঁর ভালো পারফরম্যান্স দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।

সিমে ভরসালিয়োকো

নিজের ক্লাবেই ছিলেন অবহেলিত। কিন্তু বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়ার জার্সিতে তাঁর অসাধারণ পারফরম্যান্স নজর কেড়েছে সবার। আর তাই দামটাও আকাশচুম্বী হতে সময় নেয়নি।

ইভান পেরিসিচ

ক্রোয়েশিয়া আক্রমণভাগে বিস্ময়ের নাম ছিল পেরিসিচ। অনেকেই চিনতেন না পেরিসিচকে। তবে পেরিসিচ কিন্তু গত তিন মৌসুমে ধরেই ধারাবাহিক। আর বিশ্বকাপে তাঁর পারফরম্যান্সের জোরে দামটাও বেড়ে গেছে।

আনে রেবিচ

ইভান পেরিসিচের সঙ্গে আনে বেবিচের দামও বেড়েছে। ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এই দুইজনকে একসঙ্গে কিনতে চাচ্ছে। এই দুইজনকে দলে ভেড়াতে ম্যানেজার হোসে মরিনহো ৯২ মিলিয়ন পাউন্ড খরচের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। -বাংলা ইনসাইডার

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 0 - Rating 0 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)