কিডনিতে পাথর জমার কারণ ও করণীয়

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 11 Jul 2018 at 9:39am 289
Googleplus Pint
কিডনিতে পাথর জমার কারণ ও করণীয়

কিডনিতে পাথর জমা একটি মারাত্মক রোগ। এই রোগের কারণে মানুষের মৃত্যু হতে পারে। কিডনিতে পাথর ব্যথা-বেদনা ছাড়াই দীর্ঘদিন পেটের মধ্যে থাকতে পারে।

কিডনিতে পাথর জমার কারণ:

* শরীরে ক্যালসিয়ামের মাত্রাতিরিক্ত আধিক্য।

* বারবার কিডনিতে ইনফেকশন হওয়া এবং এর জন্য যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা না করা।

* অত্যাধিক পরিমাণে দুধ, পনির বা দুগ্ধজাত খাবার খাওয়ার অভ্যাস।

* শরীরে পানি স্বল্পতা। কম পানি খাওয়া।

কিডনিতে পাথর হওয়ার উপসর্গ:

* বমি বমি ভাব। অনেক সময় বমিও হতে পারে।

* রক্তবর্ণের প্রসাব।

* কিডনির অবস্থানে (কোমরের পিছন দিকে) ব্যথা। এই ব্যথা তীব্র তবে সাধারণত খুব বেশি ক্ষণ স্থায়ী হয় না। ব্যথা কিডনির অবস্থান থেকে তলপেটেও ছড়িয়ে পড়তে পারে।

সতর্কতা:

* কখনও প্রসাব আটকে বা চেপে রাখবেন না! প্রসাবের বেগ আসলে চেষ্টা করবেন সঙ্গে সঙ্গে প্রসাব করার।

* বারবার ইউরিন ইনফেকশন দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

* দুধ, পনির বা দুগ্ধজাত খাবার অতিরিক্ত মাত্রায় না খাওয়াই ভাল।

* প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খান।

* কিডনি স্টোন-এর ঝুঁকি এড়াতে হলে অবশ্যই প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে।

চিকিৎসা:

কিডনির অবস্থানে ব্যথা এবং রক্তবর্ণের প্রসাব হলে চিকিৎসকরা সাধারণত দুটো সম্ভাবনার কথা চিন্তা করেন। একটি হল কিডনির ইনফেকশন, অন্যটি কিডনিতে পাথর। তাই কিডনির এক্সরে, আলট্রা সনোগ্রাম এবং প্রসাবের নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরই উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

কখনও পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি আর যথাযথ ওষুধ খেলেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে অস্ত্রপচারই একমাত্র উপায়।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 0 - Rating 0 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)