জামালপুরের মেলান্দহে গৃহশিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী ধর্ষিত

দেশের খবর 19 May 2018 at 9:40pm 966
Googleplus Pint
জামালপুরের মেলান্দহে গৃহশিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী ধর্ষিত

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রী তার গৃহশিক্ষক কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ১২মে উপজেলার ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের নাগেরপাড়া গ্রামের ওই গৃহশিক্ষক মনোয়ার হোসেনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা গৃহশিক্ষক মনোয়ার হোসেনে বিরুদ্ধে মেলান্দহ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আজ শনিবার ধর্ষিতার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে পুলিশ। এদিকে এ ঘটনার পর থেকেই গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছেন মনোয়ার হোসেন।

জানা গেছে, ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের নাগেরপাড়া গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে মনোয়ার হোসেন পাশের গ্রাম চরবংশী বেলতৈল গ্রামের এক দরিদ্র কৃষকের ১৪ বছর বয়সী মেয়েকে বাসায় গিয়ে পড়াতেন। মেয়েটি স্থানীয় বেলতৈল কিন্ডার গার্ডেনের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। ওই গৃহশিক্ষক প্রায় ছয় মাস ধরে তাকে পড়ায়।

ধর্ষণের শিকার মেয়েটি আজ শনিবার দুপুরে জানায়, গত ১২ মে সকাল আটটায় গৃহশিক্ষক মনোয়ার হোসেন তাকে ফুসলিয়ে কম্পিউটার শেখানোর কথা বলে নাগেরপাড়ায় তার বাড়িতে নিয়ে যায়। ওই রাতে তাকে আটক রেখে ধর্ষণ করা হয়। পরদিন ১৩মে সকালে মনোয়ার হোসেন তাকে মেলান্দহ থেকে জামালপুর শহরে নিয়ে যায়।

শহরে দুপুর পর্যন্ত রিকশা ও ইজিবাইকে এখান থেকে সেখানে ঘোরাফেরা করে আবার মেলান্দহে বাড়ির কাছে নিয়ে তাকে রেখে কেটে পড়েন ওই গৃহশিক্ষক। পরে তাকে মেলান্দহ উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯/৭(১) ধারায় গৃহশিক্ষক মনোয়ার হোসেনকে আসামি করে মেলান্দহ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর মেলান্দহ থানা পুলিশ আজ শনিবার ধর্ষণের শিকার মেয়েটিকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষা করিয়েছে।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্দকারী কর্মকর্তা মেলান্দহ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. শাহ সেকান্দার কালের কণ্ঠকে বলেন, আসামি মনোয়ার হোসেন পলাতক থাকায় তাকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ধর্ষণের শিকার মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 0 - Rating 0 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)