একবিংশ শতাব্দীর সেরা ডেলিভারি!

ক্রিকেট দুনিয়া 19th Dec 17 at 2:44am 1,043
Googleplus Pint
একবিংশ শতাব্দীর সেরা ডেলিভারি!

২৪ বছর আগে ক্রিকেটের এক অভুতপূর্ব ঘটনা দেখেছিল ক্রিকেট বিশ্ব। ১৯৯৩ সালে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে লেগ স্ট্যাম্পেরও বাইরে পিচ করে ব্যাটসম্যানের অফ স্ট্যাম্প উড়িয়ে দিয়েছিল ম্যাজিকাল এক ডেলিভারি। সেই ম্যাজিকাল ডেলিভারি যার হাত থেকে এসেছিল তিনি ক্রিকেটের কিংবদন্তি শেন ওয়ার্ন। অস্ট্রেলিয়ার এই লেগ স্পিনারের সেই ডেলিভারিকে ‘বল অব দ্য সেঞ্চুরি’ নামে আখ্যা দিয়েছিল ক্রিকেট বিশ্ব।

বলা হয়েছিল এই ধরনের ডেলিভারি ১০০ বছরে একবারই হয়। ওয়ার্নেরটা যদি বিংশ শতাব্দীর সেরা ডেলিভারি হয়, তাহলে রোববার পার্থে মিশেল স্টার্ক যেভাবে জেমস ভিন্সকে বোল্ড করলেন, সেটা একবিংশ শতাব্দীর সেরা ডেলিভারি!

অ্যাশেজ সিরিজের তৃতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনের খেলা চলছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করছিল ইংল্যান্ড। ৫৫ রান নিয়ে স্ট্রাইকিং এন্ডে ছিলেন জেমস। বল হাতে রাউন্ড দ্য উইকেটে আক্রমণে এসেছিলেন স্টার্ক। বাঁহাতি এই পেসারের ১৪৩ কিলোমিটার গতির বলটা মিডল স্টাম্পে পড়ে অনেকটা লেগস্পিনের মতো টার্ন করল, এরপর ভেঙে দিল অফ স্টাম্প। ব্যাটসম্যান ভিন্সের চক্ষু তো চড়কগাছ! চেয়ে দেখা ছাড়া আর কিছুই করার ছিল না তার! দারুণ খেলতে থাকা এই ইংলিশ ব্যাটসম্যান রীতিমত হতভম্ব হয় যান ওই ডেলিভারির চমকে।

বিংশ শতাব্দীর সেরা ডেলিভারির মালিক কিংবদন্তি ওয়ার্ন স্টার্কের এই বলকে বলছেন, ‘অ্যাশেজ ইতিহাসের সেরা ডেলিভারি।’ ওয়ার্নের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন সাবেক ইংলিশ ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেনও। আর সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভনের চোখে এটা ‘একবিংশ শতাব্দীর সেরা ডেলিভারি।’ পাকিস্তানের পেস কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন, 'দারুণ বল। স্টার্ক তুমি আমাকে আমার সময়ের কথা মনে করিয়ে দিলে!'

দিনের খেলা শেষে ভিন্স বললেন, ‘আমি যদি আরও ২০ বা ৩০ বার বলটার মুখোমুখি হই, প্রতিবারই আমি আউট হব। বোলারকে কৃতিত্ব দিতেই হবে।’ দিনের খেলা শেষ হতেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে স্টার্কের এই চমকে দেওয়া ডেলিভারি। শুরু হয় তুমুল আলোচনার। কেউ বলছেন অ্যাশেজের সেরা বল। আবার কেউ বলছেন এই শতাব্দীরই সেরা বল এটা।

তথ্যসূত্রঃ অনলাইন

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 11 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)