গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তির ১১ উপায়

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 25th Oct 17 at 7:57pm 344
Googleplus Pint
গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তির ১১ উপায়

এখন সব বয়সী মানুষই এসিডিটি বা গ্যাসের সমস্যায় ভুগছেন। তেলে ভেজাল, অতিরিক্ত ঝাল, খাবার উপাদানের মধ্যে রাসায়নিক ব্যবহারসহ নানা কারণে মানুষের শরীরে গ্যাসের সমস্যা দিনদিন প্রকট হচ্ছে। তবে একটু সতর্ক হলেই গ্যাসের অস্বস্তিকর যন্ত্রণা থেকে রেহাই পেতে পারেন।

তাহলে জেনে নিন গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তির ১১ উপায়:-

১. খাবার সময় তাড়াহুড়া না করে আস্তে আস্তে খান। এবং চিবিয়ে খান। আস্তে আস্তে চিবিয়ে খেলে খাবার সহজেই হজম হয়।

২. একবারে বেশি না খেয়ে বারবার অল্প করে খান। তাতে খাবার সহজে হজম হবে। আপনার গ্যাসের সমস্যাও হবে না।

৩. যদি আপনার কার্বনেটেড ড্রিঙ্ক খাওয়ার অভ্যাস থাকে তাহলে ছেড়ে দিন। এ ধরনের পানীয়তে কার্বন ডাই অক্সাইড থাকায় শরীরে গ্যাস তৈরি করতে পারে।

৪. যদি আপনার পেটে গ্যাস জমে তাহলে খানিকটা হাঁটুন। তাতে দেখবেন গ্যাস বেরিয়ে আপনি স্বস্তিবোধ করছেন।

৫. যদি কোন বিশেষ খাবার খেলে আপনার গ্যাস হয় তাহলে সে খাবারটি বর্জণ করুন।

৬. খাবার গরম গরম খেলে আপনার হজমে বিভ্রাট ঘটবে। তাই গরম গরম খেলে আপনার পেটে গ্যাস হওয়াটাই স্বাভাবিক। এখন থেকে তাই গরম খাবার বর্জণ করুন।

৭. খুব টাইট পোশাক পরলে খাওয়ার পরে অস্বস্তি সৃষ্টি হয়। সেক্ষেত্রে আপনার পেটে গ্যাস জমাটা অসম্ভব নয়। পারলে খাবার সময় বা পরে টাইট পোশাক বর্জণ করুন। তাহলে আপনার গ্যাসের সম্ভাবনা কম থাকবে।

৮. আমরা যখন খাই তখন শরীরে বাইরের বাতাস প্রবেশ করে। এর ফলে শরীরে গ্যাস জমে। ধুমপান করলে বা খুব বেশি চুইংগাম খেলে শরীরে বাতাস ঢুকে যায়। এর প্রভাবে আপনার পেটে গ্যাস হওয়াটাই স্বাভাবিক। তাই পারলে ধুমপান, চুইংগাম বর্জণ করুন।

৯. আপনি যদি নিয়মিত ফ্রিহ্যান্ডে ব্যায়াম করেন তাহলে শরীরের সব অঙ্গ-প্রতঙ্গ সচল থাকবে। রক্ত চলাচলও স্বাভাবিক থাকবে। আপনার শরীরে হজমশক্তি বাড়বে। তাই আপনাকে গ্যাসের সমস্যায় ভুগতে হবে না।

১০. আপনি সব সময় স্বাভাবিক থাকতে চেষ্টা করুন। যদি আপনি কোন বিষয়ে উত্তেজিত হয়ে উঠেন তাহলেই আপনার বিপদ। তাতে আপনার খাবার সহজে হজম হবে না। পেটে জমবে গ্যাস।

১১. খাওয়ার মাঝে মাঝে পানি খাবেন না। খাওয়ার অন্তত আধা ঘন্টা পর একবারে বেশি করে পানি খান। সকালে পারলে ভোরে ঘুম থেকে উঠুন। বাসিপেটে পানি খাওয়ার অভ্যাস করুণ

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 8 - Rating 6 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)