ছন্দময় সিল্কি চুলের জন্য

রূপচর্চা/বিউটি-টিপস 4th Sep 17 at 11:24am 454
Googleplus Pint
ছন্দময় সিল্কি চুলের জন্য

প্রতিটি রমণীর সবচেয়ে পছন্দের জিনিস হলো তার চুল। আর সেই চুল যদি সিল্কি হয় তাহলেত কথাই নেই। অনেক মেয়েরই স্বপ্ন থাকে ঘনকালো সিল্কি চুলের। চাইলে আপনি ঘরে বসেই অতি অল্প সময়ে পেতে পারেন সেই আরাধ্য সিল্কি চুল।

লেবু সব সময়ই বাজারে কম বেশি পাওয়া যায়। তাই কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই অনেক সহজেই আপনার চুল সিল্কি করতে পারেন। একটা সহজ উপায় হল, আপনি সাধারণত যে শ্যাম্পু ব্যাবহার করেন, সেই শ্যাম্পুর সাথে পানি মিশিয়ে প্রথমে আপনার মাথার চুল ধুয়ে নিন। এর পর এক মগ পানিতে একটি লেবুর রস বা ভিনেগার ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর চুল ভেজা অবস্থাতেই সমস্ত চুলে সেই লেবুর পানি ধীরে ধীরে ঢালুন। আলতো করে চুলটা মুছে নিন। চুল শুকিয়ে এলেই তফাতটা দেখতে পারবেন।

চুলের যত্নে টকদই এর কোনো বিকল্প নেই। টকদইয়ের সাথে লেবুর রস মিশিয়ে ব্যবহার করলে মাথার খুশকি চলে যায় এবং আপনার চুল হয়ে উঠে সিল্কি ও প্রাণবন্ত। এক কাপ টকদই এর সাথে একটি লেবুর রস ও ২ টেবিল চামচ তেল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এবার গোসলের আগে সমস্ত চুলে এবং চুলের গোড়ায় এই প্যাকটি ভালো করে ধীরে ধীরে লাগান। এভাবে প্যাকটি মেখে ৩০-৪০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে খুব ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। চুল শুকিয়ে এলে আপনি নিজেই পার্থক্যটা বুঝতে পারবেন। প্রতি সপ্তাহে অন্তত দুই বার এই প্যাকটি চুলে ব্যবহার করতে পারেন।

যারা চুলের বিভিন্ন রকমের সমস্যায় ভুগছেন, তাদের জন্য চুলে মেহেদী ব্যবহার করা জরুরী। মেহেদী ব্যবহারে চুলের গোড়া শক্ত হয়, চুল তার পুষ্টি ফিরে পায়, খুশকি দূর হয়। সাথে সাথে চুলের ভাঙন দূর হয়, চুল হয় স্বাস্থ্য-সবল ও প্রাণবন্ত। বাজারে এখন কাচা মেহেদী পাতাও পাওয়া যায়। মেহেদীর সাথে হালকা একটু লেবুর রস মিশিয়ে নিলে আরো ভালো হয়। কারো যদি মেহেদী পাতা সংগ্রহ করতে সমস্যা হয় তবে প্যাকেট হারবাল মেহেদী ব্যবহার করতে পারেন।

ভালো হারবাল মেহেদী প্রাকৃতিক মেহেদীর মতোই কাজ করে এবং চুলের জন্যও বেশ উপকারি। গরম পানিতে মেহেদী প্যাকটি গুলিয়ে পরে ঠাণ্ডা করে মাথায় লাগাতে হবে। প্যাকটি চুলে এক ঘণ্টা রাখবেন। আর যদি কেউ চুলে লাল লাল আভা আনতে চান তবে ২-৩ ঘন্টা অপেক্ষা করুন। প্রতি মাসে অন্তত দুই বার প্যাকটি ব্যাবহার করতে পরেন। তবে সাবধান ৫ মিনিটে লাল হয় এইরকম লেখা মেহেদী থেকে ১০০ হাত দুরে থাকবেন। এগুলোর মধ্যে ক্ষতিকর ক্যামিকেল ছাড়া আর কিছুই নেই।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 23 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)