বাবা-মায়ের ফেলে যাওয়া শিশুকে রক্ষা করল কুকুর

সাধারন অন্যরকম খবর 27th Jul 17 at 8:08pm 520
Googleplus Pint
বাবা-মায়ের ফেলে যাওয়া শিশুকে রক্ষা করল কুকুর

ব্যস্ত হাওড়া স্টেশন চত্বরে শুয়ে থাকা এক পথশিশু। আশপাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে কত শত ব্যস্ত পা! যে যার গন্তব্যে চলেছে।

যাওয়া-আসার পথে চোখ পড়ছে বাচ্চাটার দিকে। কিন্তু কেউ দাঁড়াচ্ছেন না সেখানে। আসলে এমন দৃশ্য দেখে তাঁরা অভ্যস্ত।

সকলেই ভেবেছেন, বাচ্চাটা স্টেশন নিবাসী গৃহহীন অসহায় কোনও পরিবারের সদস্য। আশপাশেই বুঝি রয়েছে ওর মা।

কে জানবে, বাচ্চাটিকে ওখানে রেখেই চলে গিয়েছে তার বাবা-মা। পরিত্যক্ত অবস্থায়, অসহায় ধুলোমাখা পৃথিবীতে, একা।

মাথার কাছে রাখা ফিডিং বোতল। পাশে রাখা আধখোলা ব্যাগ। সেখান থেকে উঁকি দিচ্ছে ডায়াপার। থেকে থেকে কেঁদে উঠছিল শিশুটি। হয়তো খিদে, কিংবা অন্য কিছু। কিন্তু কারও ভ্রুক্ষেপ ছিল না। কারও বলতে মানুষের কথা বলা হচ্ছে।

কারণ ওখানকার বাসিন্দা কুকুরগুলো কিন্তু ঠিকই বুঝে গিয়েছিল শিশুটি একেবারেই শিকড়ছেঁড়া, নিরাপত্তাহীন, পরিত্যক্ত। আর তাই তারা ঘিরে রেখেছিল ছয় মাসের নিষ্পাপ প্রাণটিকে। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সূত্রে সামনে এসেছে এই হৃদয়স্পর্শী ঘটনাটি। পরে ফাঁকা হয়ে আসা প্ল্যাটফর্মে আরপিএফের এক কনস্টেবল এসে বাচ্চাটিকে নজর করেন। তিনিই খবর দেন আরপিএফের দফতরে। উদ্ধার হওয়া শিশুটিকে পাঠানো হয় হাসপাতালে ও পরে চাইল্ড লাইনে।

হিন্দু পুরাণ থেকে পাওয়া বহু পরিচিত শকুন্তলার কাহিনি আরও একবার যেন উঠে এল এই ঘটনায়। সেখানেও ঋষি কন্ব অরণ্যের মধ্যে যখন শিশু শকুন্তলাকে খুঁজে পান, তখন সেই পরিত্যক্ত শিশুটিকে রক্ষা করছিল শকুনের দল। তাদের ছড়িয়ে রাখা ডানার আচ্ছাদন তাকে দিয়েছিল নিরাপত্তা ও আশ্রয়।

হাওড়া স্টেশনের ওই পথকুকুরগুলিও তো একইভাবে খেয়াল রেখেছিল পরিত্যক্ত শিশুটির। লক্ষ রেখেছিল, যেন কোনওভাবেই কোনও ক্ষতি না হয় তার। জীবনের সঙ্গে এইভাবেই মিলে গেল পুরাণকথা। তৈরি হল জীবন নাট্যের এক আশ্চর্য স্নেহমাখা আখ্যান।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 28 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)