যে ৮ কারণে বায়ুত্যাগ জরুরি

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 6th Jul 17 at 1:49pm 638
Googleplus Pint
যে ৮ কারণে বায়ুত্যাগ জরুরি

জনবহুল স্থানে বায়ুত্যাগ করে অনেকেই তিরস্কারের মুখে পড়েছেন। অনেকেই লোকলজ্জার ভয়ে প্রকাশ্যে বায়ুত্যাগ করা থেকে বিরত থাকেন। কিন্তু চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা বলছেন বায়ুত্যাগ স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। তারা বলছেন বায়ুত্যাগ প্রমাণ করে আপনি সুস্থ। আপনার পরিপাকক্রিয়া স্বাভাবিক আছে। জেনে নিন বায়ুত্যাগের ৮টি উপকারিতা।

এক. বায়ুত্যাগের ফলে পাকস্থলীর গ্যাসের পরিমান কমে। ফলে পেটে স্বস্তি অনুভূত হয়। সময়মত বায়ুত্যাগ না করলে অস্বস্থি হয়। যার ফলে পেট ফাঁপা থেকে শুরু করে ক্ষুধামন্দাও হতে পারে।

দুই. এক এক জন মানুষ এক এক খাদ্যভাস গড়ে তুলেছেন। কিছু কিছু খাবার পাকস্থলীতে গিয়ে অতিরিক্ত বায়ু তৈরি করে। তাই বায়ুত্যাগ প্রমাণ করে আপনার বিপাকক্রিয়া স্বাভাবিক আছে। হাফিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকস্থলীতে আপনার খাবারগুলো যে সঠিকভাবে হজম হয়েছে তার প্রমাণ মেলে বায়ুত্যাগের মাধ্যমে।

তিন. খাবার খাওয়ার পর পাকস্থলীতে গ্যাস তৈরি হয়। যার কারণে পেট ব্যথা হয়। বায়ুত্যাগের মাধ্যমে পেটের ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

চার. বায়ুত্যাগের প্রয়োজন হলে পাকস্থলীর নিম্নভাগে চাপ পড়ে। তথন বায়ুত্যাগ না করলে কোলনের ওপর সৃষ্টি হয়। তাই বায়ু আটকে না রেখে সঠিক সময়ে সেটি শরীর থেকে স্বাভাবিক ভাবে বের করে দেয়া উচিত।

পাঁচ. অনেকেই দুর্গন্ধযু্ক্ত বায়ুত্যাগ করেন। কিন্তু বিজ্ঞানীরা বলছেন দুর্গন্ধযু্ক্ত বায়ুত্যাগ স্বাভাবিক প্রক্রিয়া এবং এটি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। বিজ্ঞানীরা জানান, পাকস্থলীতে অল্পপরিমানে হাইড্রোজেন সালফাইড গ্যাস উৎপাদন হয়। যার কারণে দুর্গন্ধযুক্ত বায়ু শরীর থেকে বেরিয়ে আসে।

ছয়. একটু ভেবে বলুন। আপনি কি প্রতিদিন নিয়ম করে বায়ুত্যাগ করেন?যদি করেন তবে আপনি স্বাস্থ্যবান। আর যদি আপনাকে পরিশ্রম করে বায়ুত্যাগ করতে হয় তবে আপনার শরীরের বিপাকক্রিয়া স্বাভাবিক নয়।

সাত. কিছু কিছু খাবার আছে যেগুলো খেলে বায়ুত্যাগের পরিমান বেড়ে যায়। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা বলছেন যেসব খাবার শরীরের অ্যালার্জির পরিমান বাড়িয়ে দেয় সেসব খাবারের কারণে বায়ুত্যাগের পরিমান বেড়ে যেতে পারে। তাই এসব খাবার পরিত্যাগ করা উচিত।

আট. সুখী হতো চান? তবে বায়ু আটকে রাখবেন না। চিকিৎসা বিষয় জার্নালগুলো বলছে সঠিক সময়ে বায়ুত্যাগের মাধ্যমে আপনি হতে পারেন সুখী ও আত্মবিশ্বাসী। পাশাপাশি শারিরীক অস্বস্তি দূর করতে বায়ুত্যাগ জরুরি।

তবে মনে রাখবেন আপনার বায়ুত্যাগের কারণে যেনো অন্যরা অস্বস্তিতে না পড়েন। তাই বাথরুমের গিয়েই বায়ুত্যাগ করুন। কিংবা জনশুন্য স্থানে গোপনে কাজটি সেরে আসুন। এতে আপনি যেমন থাকবেন ফিট তেমনি অন্যরা পরিবেশ দূষণ থেকে থাকবে মু্ক্ত।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 18 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)