মোবাইলের নেটওয়ার্ক পেতে মই বেয়ে গাছে উঠলেন মন্ত্রী!

সাধারন অন্যরকম খবর 6th Jun 17 at 4:08am 774
Googleplus Pint
মোবাইলের নেটওয়ার্ক পেতে মই বেয়ে গাছে উঠলেন মন্ত্রী!

ডিজিটাল ভারত গড়ার প্রত্যয় শোনা যায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কণ্ঠে। তিনি গ্রাম পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে চান ডিজিটাল সেবা। কিন্তু বাস্তবতা বলছে ভিন্ন কথা। সম্প্রতি এমনই কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি হতে হয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় অর্থ ও করপোরেট বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘওয়ালকে। প্রত্যন্ত এক গ্রামে সফরকালে মোবাইলের নেটওয়ার্ক পেতে তাকে মই বেয়ে গাছে উঠতে হয়েছে!

রোববার (৪ জুন) অর্জুন রাজস্থানের তার নির্বাচনী এলাকার অন্তর্গত প্রত্যন্ত ধোলিয়া গ্রামে সফরে যান। সফরকালে তিনি গ্রামবাসীর সঙ্গে তাদের সুবিধা-অসুবিধা নিয়ে কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রীকে কাছে পেয়ে গ্রামবাসীও তাদের অভিযোগ জানান। বলেন, স্থানীয় হাসপাতালে নার্সের সংখ্যা কম। এ কারণে তাদের স্বাস্থ্যসেবা পেতে বেশ অসুবিধার মুখোমুখি হতে হয়।

এ অভিযোগ পেয়ে তিনি পাশের শহরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে ফোন দেন। এতেই বাধে বিপত্তি। বারবার চেষ্টা করার পরেও নেটওয়ার্ক পেতে ব্যর্থ হন তিনি। গ্রামবাসীর সামনে ব্রিবত হতে হয়। সমাধানে এগিয়ে আসেন গ্রামের মানুষই। তারা প্রতিমন্ত্রীকে গাছে উঠে কথা বলার পরামর্শ দেন।

এ বুদ্ধি পছন্দ হয় অর্জুনের। সঙ্গে সঙ্গেই জোগার করা হয় মই। তা বেয়ে সটান গাছে উঠে যান ৬২ বছর বয়সী এ রাজনীতিক। আর তাতেই মিলে নেটওয়ার্ক। প্রয়োজনীয় কথা সেরে নিরাপদেই নেমে আসেন তিনি। এসময় সরকারি কর্মকর্তারা নিচে দাঁড়িয়ে মই ধরে থেকে ভারসাম্য রক্ষায় সহায়তা করেন।

গ্রামবাসী জানান, নিকটস্থ শহর থেকে ৮৫ কিলোমিটার দূরের এ গ্রামটিতে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক পাওয়া বেশ দুষ্কর। মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক পেতে অহরহ তাদের গাছে উঠতে হয়!

এ ঘটনার ছবি ভাইরাল হলে আলোচনা-সমালোচনা ছড়িয়ে পড়ে। অনেকেই এ ঘটনাকে মোদির ডিজিটাল ভারত গড়ার স্বপ্নের বাস্তব অবস্থা বলে সামাজিক মাধ্যমে মন্তব্য করেন। অনেকে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপে মেতে ওঠেন।

তবে গাছে উঠেন ক্ষান্ত হননি প্রতিমন্ত্রী অর্জুন মেঘওয়াল। সমস্যা সমাধানে তাৎক্ষণিকভাবে ১৩ লাখ রুপি বরাদ্দ করেন। এ অর্থের বিনিময়ে আগামী ৩ মাসের মধ্যে গ্রামটিতে মোবাইল টাওয়ার ও বিদ্যুত সংযোগ স্থাপনের নির্দেশ দেন তিনি।

সূত্রঃ অনলাইন

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 23 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)