ফুড অ্যালার্জি প্রতিরোধ করুন ৭টি উপায়ে

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 25th May 17 at 9:55pm 127
Googleplus Pint
ফুড অ্যালার্জি প্রতিরোধ করুন ৭টি উপায়ে

ফুড অ্যালার্জিতে অনেকেই আক্রান্ত। সেন্টার অফ ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশনের মতে ফুড অ্যালার্জি ৪ থেকে ৬ পারসেন্ট শিশু এবং ৪ পারসেন্ট বড়দের মধ্যে দেখা যায়। বিশেষ কোন খাবার যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার সাথে অসহনশীল। আর এই খাবারগুলো খেলে শরীরে চুলকানি, লাল হয়ে যাওয়া, ফুলে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যাকে ফুড অ্যালার্জি বলা হয়। ফুড অ্যালার্জিতে আক্রান্ত হলে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চলা উচিত। তবে কিছু উপায় আছে যা অনুসরণ করলে ফুড অ্যালার্জিতে দূরে থাকা সম্ভব।

১। আদা
আদার অ্যান্টি ইনফ্লামমেটরি, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান হজমের সমস্যা দূর করে। এর সাথে চুলকানি, জ্বালাপোড়া রোধ করে থাকে। দুই তিন কাপ আদা চা পান করুন। দুই তিন কাপ পানিতে কয়েক টুকরো আদা দিয়ে দিন ১০ মিনিট জ্বাল দিন। এরসাথে চাইলে এক চা চামচ মধু মেশাতে পারেন। এটি কুসুম গরম অবস্থায় পান করুন। এছাড়া এক চা চামচ আদার রস এবং মধু একসাথে মিশিয়ে খাবার খাওয়ার আগে খান। এটি হজম শক্তি বৃদ্ধি করবে।

২। আপেল সাইডার ভিনেগার
এক গ্লাস গরম পানিতে এক টেবিল চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার, এক চা চামচ মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এটি দিনে ২ থেকে ৩ বার পান করুন। আপেল সাইডার ভিনেগারে অ্যান্টিহিস্টামিন এবং অন্যান্য উপাদান বিভিন্ন ফুড অ্যালার্জি দূর করে থাকে।

৩। খাবার এড়িয়ে চলা
যেসকল খাবারের আপনার অ্যালার্জি হয়ে থাকে সেগুলো এড়িয়ে চলুন। সাধারণত চীনাবাদাম, ডিম,দুধ,সয়া,সামুদ্রিক খাবার,বিভিন্ন কেমিক্যাল দেওয়া খাদ্য,শাকজাতীয় খাবার,চিংড়ি, গরুর মাংস ইত্যাদি খাবার অ্যালার্জি হয়ে থাকে। কোন খাবারে অ্যালার্জি হচ্ছে তা বোঝার জন্য দুই-তিন দিনের খাবারে লিস্ট তৈরি করুন। তার মধ্যে থেকে যে খাবারটি অ্যালার্জি কারণ সেটি খুঁজে বের করুন। সে খাবারটি এড়িয়ে চলা আপনার জন্য ভালো।

৪। গাজর এবং শসার রস
গাজর এবং শসার রস একসাথে মিশিয়ে পান করুন। গাজর এবং শসার অ্যান্টিঅ্যালার্জিক উপাদান ত্বকের চুলকানি, লাল লাল ভাব দূর করে থাকে।

৫। গ্রীণ টি
সবুজ চায়ের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি ইনফ্লামেন্টরী উপাদান ফুড অ্যালার্জি দূর করে দিয়ে থাকে। সবুজ চায়ের সাথে মধু এবং লেবু মিশিয়ে নিতে পারেন স্বাদ বৃদ্ধির জন্য। দিনে ৩ থেকে ৪ কাপ গ্রিণ টি পান করুন।

৬। লেবু
লেবু রোগ প্রতিরোধ বৃদ্ধি করে ফুড অ্যালার্জি প্রতিরোধ করে। এক কাপ কুসুম গরম পানিতে একটি লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এরসাথে মধু মেশাতে পারেন। এটি সকালে খালি পেটে পান করুন। এটি নিয়মিত করুন। তবে যাদের লেবুতে অ্যালার্জি রয়েছে তারা এড়িয়ে চলুন।

৭। রসুন
প্রতিদিন দুই তিন কোয়া রসুন চিবিয়ে খান। রসুনের কোয়ারসিটেন ফুড অ্যালার্জি প্রতিরোধ করে। এছাড়া রসুন স্যাপ্লিমেন্টরি খেতে পারেন। তবে তা অব্যশই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 16 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)