JanaBD.ComLoginSign Up


জঙ্গলে টানা সাতাশ বছর একা কাটিয়ে ফিরলেন নাইট!

সাধারন অন্যরকম খবর 14th May 17 at 2:53pm 479
Googleplus Pint
জঙ্গলে টানা সাতাশ বছর একা কাটিয়ে ফিরলেন নাইট!

স্বপ্ন নয়, শূন্য নয়, ভালোবাসা নয়। ক্রিস্টোফার নাইটের মাথার ভিতরে তখন কাজ করছিল অন্য বোধ। গাড়িটাকে পথের প্রান্তে রেখে সভ্যতাকে বিদায় জানিয়ে ঢুকে গেলেন জঙ্গলে।

আর একজন রিপ ভ্যান উইংকল মোটেও নন ক্রিস্টোফার নাইট।

মিল বলতে, দুজনেই কুড়ি বছরের বেশি সময় পৃথিবীর চোখে স্রেফ ‘নেই’ হয়ে কাটিয়ে দিয়েছেন। ব্যস। নাইট ঘর ছেড়েছিলেন সম্পূর্ণ নিজের ইচ্ছাই। নির্জনে সঙ্গীহীন হলে জীবন কাটাবেন বলেই। ওই জেদেই তো জঙ্গলের গভীরে ২৭টা বছর কাটিয়ে দিলেন তিনি। একদম একলা হয়ে।

কতই বা বয়স তখন তার? সবে কুড়ি পার হয়েছে। ঠিক সেই সময়ই উধাও হলেন তিনি। ঘরের প্রিয় কোণ, মোটা মাইনের চাকরি, অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টস, প্রেম, যৌনতা-এক কুড়ি-বছরের জীবনে যা কিছু দেখতে অভ্যস্ত মানুষ, সবটুকু পিছনে ফেলে সুতো ছিঁড়ে ভোলা চললেন জঙ্গলে। একা। ঝোলায় রইল সামান্য জিনিস আর সঙ্গী হল গাড়িটা। এক দিন-দুদিনের জন্য নয়, বছর খানেকের জন্যও নয়। ২০১৩ সালে পুলিশের হাতে যখন ধরা পড়লেন, তখন কেটে গেছে সাতাশটা বছর। যৌবন পেরিয়ে প্রৌঢ়ত্বের দিকে গুটিগুটি এগোচ্ছে জীবন।

অতদিন ধরে জঙ্গলের গভীরে তিনি পরিপাটি সংসার করেছেন, ঘুমিয়েছেন, খেয়েছেন, চান করেছেন। এমনকি চুরিও করেছেন। কিন্তু সবটাই মানুষজনকে এড়িয়ে।

আদতে তিনি মার্কিন মুলুকের মেইনের বাসিন্দা। পরে কাজের সূত্রে আসেন বস্টন। সেখানে বাড়ি আর গাড়িতে অ্যালার্ম বসানোর কাজ করতেন। বছরখানেকও অবশ্য ঘুরল না।

কোনও নোটিশ ছাড়াই দুম করে কাজটা ছেড়ে দিলেন। বেতনের শেষ চেকটা ভাঙিয়ে টাকা তুলে শহর ছাড়লেন। নিজের পরিবার, সহকর্মী- কাউকে কিচ্ছুটি না জানিয়েই।

আমেরিকায় তখন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগনের জমানা। সদ্য পরমাণু বিপর্যয় ঘটেছে রাশিয়ার চেরনোবিল-এ। সে সব পিছনে ফেলে নাইট-এর গাড়ি চলল আমেরিকার পূর্ব উপকূল ধরে।

কেমন ছিল তার সেই অজানা যাপনের দিনগুলো? সাংবাদিক মাইকেন ফিনকেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে উঠে এসেছে তারই টুকরো টুকরো ছবি। আর সেই সব ছবি বুনেই ফিনকেল লিখে ফেলেছেন এক বই: ‘দ্য স্ট্রেঞ্জার ইন দ্য উড‌্স। ’ এক সদ্য যুবকের অন্য রকম বাঁচতে চাওয়ার গল্প। একেবারে উধাও হওয়ার আগে, নাইট গাড়ি নিয়ে ঘুরেছেন জর্জিয়া, ক্যারোলিনা আর ভার্জিনিয়া।

খাওয়া: ফাস্ট ফুড আর

শোয়া, সবচেয়ে সস্তার মোটেল। তারপর পাড়ি দেন মেইনের উত্তরে। তার বেড়ে ওঠার জায়গায়। দূর থেকে নিজের বাড়িটাকে শেষবারের মতো বিদায় জানাতে। তারপর ফের উজিয়ে চলা। এবার মুজহেড লেকের ধারে। এখান থেকেই মেইনে ক্রমশ নির্জন হবে। আর নাইট এগোবেন যতক্ষণ তার গাড়িতে গ্যাস মজুত থাকে।

গ্যাস ফুরোনোর পর জঙ্গলের ধারে গাড়ি রেখে হাঁটা শুরু আরও গভীরে। কত দূর, কোথায়? জানতেন না। কম্পাস, ম্যাপ কিছুই তো নেই সঙ্গে। শুধু ছিল সামান্য খাবার, অল্প জামা কাপড় আর তাঁবু তৈরির সামান্য সরঞ্জাম। তবু, সূর্যের চলাফেরা দেখে নাইট আন্দাজ করেছিলেন, জঙ্গলের দক্ষিণ দিকে হাঁটছেন তিনি। সপ্তাহ খানেকের জন্য এক-একটা জায়গায় তাঁবু ফেলেন। এক বার রাত কাটালেন এক ফাঁকা বাড়িতে। সে এক অসহ্য অভিজ্ঞতা, বলেছেন নাইট। প্রতি মুহূর্তে ধরা পড়ে যাওয়ার ভয়। ঘুম হল না।

এরপর থেকে তিনি আর এক রাতও পাকা ছাদের তলায় ঘুমনোর আরাম কুড়োতে যাননি, সে যত খারাপ আবহাওয়াই হোক না কেন। বরং খুঁজে বের করলেন জঙ্গলের গভীরে পাকাপাকি থাকার একটা জায়গা। আবহাওয়া মোটের ওপর সহনশীল। কিছু দূরেই মেইনে-র বিখ্যাত লেক।

সবচেয়ে সুখের কথা, জায়গাটা বিশ্রী রকমের পাথুরে। সাধারণ মানুষও তো বটেই, হাইকারদেরও তেমন পছন্দের নয়। এটাই তো চেয়েছিলেন তিনি।

কিন্তু খাবার? সঙ্গে যেটুকু ছিল, কবেই ফুরিয়েছে। মেইনে-র জঙ্গল বড্ড নিষ্ঠুর। ফলের গাছ প্রায় নেই। শিকার করা অথবা মাছ ধরার ব্যবস্থা না থাকলে উপোস করে মরাই নিয়তি। ঠিক এই ভুলটাই করেছিলেন নাইট। বন্দুক দূরে থাক, একটা লোহার রডও সঙ্গে ছিল না। এক বার একটা পাখির মৃতদেহ পেলেন।

কিন্তু সেটা খেতে গেলে তাকে ঝলসাতে হয়। এ দিকে আগুনটুকু জ্বালার মতোও কিছু নেই।

অগত্যা কাঁচা মাংস। কিন্তু তাতে শরীর গেল বিগড়ে। সুতরাং, ঠিক করলেন, চুরি করতে হবে। এই কাজই পরে তাঁকে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেবে। চৌর্যবৃত্তির গোড়াটা অবশ্য হাঁটা শুরুর প্রথম থেকেই হয়েছিল। জঙ্গল-লাগোয়া বাগান থেকে ভুট্টা, আলু, কাঁচা সবজি তুলতে তুলতেই এগোচ্ছিলেন তিনি। এ বার নিশানায় এল জলাশয়-লাগোয়া বাড়িগুলো। শুরু হল নিখুঁত পরিকল্পনা, আর হাতের কারিকুরির ওপর নির্ভর করে বেঁচে থাকা।

ফিনকেল লিখছেন, দূর থেকেই নাইট লক্ষ্য করতেন, বাড়ির বাসিন্দাদের জীবন। গাড়ির ঢোকা-বেরনো, পার্টি করা, ছুটি কাটানো-সব কিছু। ঘড়ির সময় মিলিয়ে। খেয়াল করলেন, প্রবল বৃষ্টিতে বাসিন্দারা জঙ্গল ছাড়ে।

বাড়িগুলো পড়ে থাকে অরক্ষিত। ওই জঙ্গলে কে-ই বা আসবে চুরি করতে! আর ঠিক এই ফাঁকটার সুযোগই নিলেন নাইট।

প্রতি বাড়িতেই একাধিক বার তিনি ঢুকেছেন।লেকের ধারে সময় কাটাতে আসা মানুষের ডিঙি নৌকো কিছু ক্ষণের জন্য সরিয়ে তাকেই কাজে লাগিয়েছেন চোরাই জিনিস তাঁবুতে বয়ে আনার জন্য। কিন্তু ‘কেউ একটা সব সময় বাড়ির দিকে লক্ষ রাখছে’-গোছের অস্বস্তি ছাড়া তাঁর অস্তিত্বটাই কেউ কখনও ধরতে পারেননি।

লাগাতার চুরি হয়েছে, চোর ধরতে নানা ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে। কিন্তু সে সব এড়িয়ে যে নিখুঁত ভঙ্গিতে তিনি তালা ভেঙে বাড়ির ভিতর ঢুকতেন, তা চমকে দিয়েছে পোড়-খাওয়া পুলিশকর্তাদেরও। সাতাশ বছরে তাঁর চুরির সংখ্যা হাজারেরও বেশি। এক বার প্রায় ধরা পড়ে যাচ্ছিলেন, তবু মসৃণই ছিল জীবন। আটক করা চোরাই মালের তালিকাও সেই কথাই বলে।

কিন্তু নির্জন জঙ্গলে এই স্বাচ্ছন্দ্যই ক্রিস্টোফার নাইটের ওই সাতাশটা বছরকে ‘খুব আশ্চর্য রকম’ হতে দিল না। হতে পারে, তিনি এতগুলো বছরে এক জন হাইকারকে হঠাৎ দেখে ‘হাই’ বলা ছাড়া আর একটা শব্দও উচ্চারণ করেননি, হতে পারে তিনি কখনও জোরে হাঁচেননি, কাশেননি, এমনকী বিড়বিড়ও করেননি ধরা পড়ার ভয়ে, হতে পারে তিনি প্রচণ্ড খারাপ আবহাওয়াতেও তাঁবুর আশ্রয় ছাড়েননি।

কিন্তু এটাও ঠিক, তার তাঁবু থেকে পাওয়া টিভি, বই, ডেনিম, রেডিয়ো, ব্যাটারি, ম্যাট্রেস, সানগ্লাসের পাশে তার ‘শিকারি-সংগ্রাহক’ খেতাব বড্ড বেমানান ঠেকে। তার একলা থাকার জেদকে কুর্নিশ জানাতে হয় ঠিকই। কিন্তু একই সঙ্গে মেইনে-র কুখ্যাত মশার দলকে ঠেকালেন কী করে-এই প্রশ্নের উত্তরে যখন তিনি নিরস ভঙ্গিতে বলেন, ‘কেন, পোকা মারার স্প্রে দিয়ে’, তখন ধাক্কা লাগে বিলক্ষণ।

হয়তো তিনি সমাজ ছাড়তে চেয়েছিলেন, লোকের সঙ্গ ছাড়তে চেয়েছিলেন। কিন্তু অনায়াস জীবনের লোভটা ছাড়তে পারেননি। তাই জঙ্গলের গভীরে আধপোঁতা তার হলদে গাড়িটা দেখে শুধুই একটু গা ছমছম করে। কিন্তু যাঁরা ‘ধুত্তোর দুনিয়া’ বলে, গোটা পৃথিবীর সঙ্গে সম্পর্ক চুকিয়ে নিজের দমে বাঁচতে চান, তাঁদের কোনও ভরসা হয়ে ওঠেন না ক্রিস্টোফার নাইট।

-আনন্দবাজার

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 22 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি
৪২ ঘণ্টার যাত্রাপথ ৪ বছরে অতিক্রম! ৪২ ঘণ্টার যাত্রাপথ ৪ বছরে অতিক্রম!
29 Jul 2018 at 11:17am 592
গরুর দুধের চেয়ে মূত্রের দাম বেশি! গরুর দুধের চেয়ে মূত্রের দাম বেশি!
25 Jul 2018 at 12:09am 1,016
স্বামীর দুইকান কেটে ফেলল এই নারী! স্বামীর দুইকান কেটে ফেলল এই নারী!
23 Jul 2018 at 7:12pm 589
পৃথিবীর বিচিত্র সব বিয়ের বর-কনে! পৃথিবীর বিচিত্র সব বিয়ের বর-কনে!
23 Jul 2018 at 8:49am 721
বিস্ময়কর ঘটনা, তীব্র গরমে হঠাৎ শুরু হয় রক্তবৃষ্টি বিস্ময়কর ঘটনা, তীব্র গরমে হঠাৎ শুরু হয় রক্তবৃষ্টি
21 Jul 2018 at 9:22pm 612
যে শিক্ষিকা ছাত্রদের সামনেই নগ্ন হতেন! যে শিক্ষিকা ছাত্রদের সামনেই নগ্ন হতেন!
20 Jul 2018 at 4:05pm 1,078
বউ রেখে পালিয়ে যাওয়ায় পাসপোর্ট বাতিল! | বউ রেখে পালিয়ে যাওয়ায় পাসপোর্ট বাতিল! |
20 Jul 2018 at 8:35am 352
নিজের পোষা কুকুরকে মুখ বেঁধে ধর্ষণ নিজের পোষা কুকুরকে মুখ বেঁধে ধর্ষণ
17 Jul 2018 at 2:21pm 953

পাঠকের মন্তব্য (0)

Recent Posts আরও দেখুন
বিপিএলে আশরাফুলকে নিতে মরিয়া যে দলবিপিএলে আশরাফুলকে নিতে মরিয়া যে দল
2 hours ago 235
এশিয়া কাপের ব্যাটিং-বোলিং পরিসংখ্যানে এগিয়ে যারাএশিয়া কাপের ব্যাটিং-বোলিং পরিসংখ্যানে এগিয়ে যারা
2 hours ago 126
৯৮০ টাকায় শক্তিশালী ব্যাটারির ওয়ালটন ফোন৯৮০ টাকায় শক্তিশালী ব্যাটারির ওয়ালটন ফোন
2 hours ago 44
ঈদে কী কোরবানি দিচ্ছেন অপু বিশ্বাস?ঈদে কী কোরবানি দিচ্ছেন অপু বিশ্বাস?
2 hours ago 187
নেইমারকে পেতে ২৯০০ কোটি টাকা গুনতে প্রস্তুত রিয়াল!নেইমারকে পেতে ২৯০০ কোটি টাকা গুনতে প্রস্তুত রিয়াল!
2 hours ago 118
তান্ডব চালিয়ে সিপিএলে প্রথম সেঞ্চুরী পোলার্ডেরতান্ডব চালিয়ে সিপিএলে প্রথম সেঞ্চুরী পোলার্ডের
5 hours ago 348
দেবের কাছে যে অদ্ভুত আবদার করলেন নায়িকারা!দেবের কাছে যে অদ্ভুত আবদার করলেন নায়িকারা!
5 hours ago 348
কোরবানি না করে সেই অর্থ গরিবদের মধ্যে বণ্টন করা যাবে?কোরবানি না করে সেই অর্থ গরিবদের মধ্যে বণ্টন করা যাবে?
6 hours ago 82
ব্রেইন টিউমারের যে ৮ গোপন লক্ষণ আপনি জানতেন নাব্রেইন টিউমারের যে ৮ গোপন লক্ষণ আপনি জানতেন না
6 hours ago 104
কোন পাখি উড়তে পারে না?কোন পাখি উড়তে পারে না?
6 hours ago 123