২০১৮ সালে দুনিয়া মাতাবে যেসব প্রযুক্তি

নতুন প্রযুক্তি 13th May 17 at 9:26am 1,694
Googleplus Pint
২০১৮ সালে দুনিয়া মাতাবে যেসব প্রযুক্তি

কয়েক সেকেন্ড পর প্রযুক্তিতে কী ঘটতে যাচ্ছে, সেটা নিশ্চিতভাবে বলা কঠিন। তবে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন গবেষণা ও সেগুলো বিচার-বিশ্লেষণের মাধ্যমে ভবিষ্যৎ সম্পর্কে কিছুটা হলেও আন্দাজ করতে পারেন। আর সেসব ভবিষ্যদ্বাণীর ওপর ভিত্তি করেই গ্রাহকরা তাদের আশার পরিধির বিস্তার ঘটান।

চলছে ২০১৭ সাল। বছর ঘুরতে বাকি আরও ৬ মাসের বেশি সময়। এরই মধ্যে ২০১৮ সালের সম্ভাব্য প্রযুক্তি নিয়ে কথা হচ্ছে বিভিন্ন পরিসরে। এ পর্যায়ে চলুন দেখে নেওয়া যাক আগামী বছর প্রযুক্তি জগৎ আমাদের কী দিতে যাচ্ছে. . .

২০১৮ সালে গড়ে প্রতি ২০ জন ব্যবহারকারী একটি করে ওয়াই-ফাই হটস্পট পাবেন। নেটওয়ার্ক এগ্রিগেটর আইপাসের এক গবেষণায় এমন তথ্যই উঠে এসেছে। তাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আসছে বছর বিশ্বজুড়ে ওয়াই-ফাই হটস্পটের সংখ্যা দাঁড়াবে ৩৪০ মিলিয়নে।

সামনের বছর এলন মাস্কের সুপারসনিক হাইপারলুপ ট্রেন চালু করার কথা রয়েছে। এই ট্রেনের গতি ঘণ্টায় ৮০০ মাইল। টেসলা ও স্পেস-এক্সের প্রধান নির্বাহী মাস্ক এ ধরনের ট্রেনের ধারণা দেন ২০১৩ সালে। এরপরই প্রযুক্তিটি নিয়ে বেশ জোরালোভাবে কাজ শুরু হয়।

আইফোনে ওএলইডি ডিসপ্লে ব্যবহার করতে যাচ্ছে অ্যাপল। আইফোন-৮-এর মাধ্যমে নতুন ডিসপ্লেটি গ্রাহকদের মধ্যে পরিচয় করিয়ে দেবে তারা। তবে বিভিন্ন কারণে আইফোন ৮ এ বছর বাজারের মুখ দেখবে না বলে জানিয়েছে প্রযুক্তিভিত্তিক বেশ কয়েকটি প্রভাবশালী গণমাধ্যম। ফলে ২০১৮ সালে ওএলইডি ডিসপ্লেসহ আইফোন পেতে যাচ্ছেন গ্রাহকরা।

আগামী বছর বাজারে আসতে পারে এইচপির এমন একটি কম্পিউটার যা একই সঙ্গে সার্ভার, ওয়ার্কস্টেশন, পিসি ও ফোনের কাজ করতে সক্ষম। এটা এক সেকেন্ডের বিলিয়ন ভাগ সময়ের মধ্যে ৬৪০ টেরাবাইট ডেটা বিশ্লেষণ করতে পারবে। অবিশ্বাস্য ক্ষমতাসম্পন্ন এ যন্ত্রটি বর্তমান সার্ভারের চেয়ে ৬ গুণ বেশি কার্যকরী হবে।

২০১৮ সালে বিশ্বজুড়ে দুর্দান্ত গতির ওয়াই-ফাই চালু হতে পারে। সঠিক হিসাবে প্রতি সেকেন্ডে ১০ গিগাবাইট গতির এই ওয়াই-ফাই নিয়ে ইতোমধ্যে বেশ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছে চীনের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। আগামী বছর বিশ্বব্যাপী এটা ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ৪জি ইন্টারনেট সেবা চালু রয়েছে। কিন্তু এমন একটি প্রযুক্তি আসছে, যা দিয়ে স্মার্টফোনের সাহায্যে ফোর-জির চেয়ে এক হাজার গুণ বেশি দ্রুতগতিতে ইন্টারনেট ব্যবহার করা সম্ভব। নতুন এই প্রযুক্তির নাম পি-সেল প্রযুক্তি। ২০১৮ সালে সারাবিশ্বের মানুষের এ সুবিধাটি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০১৮ থেকে ব্যাপকভাবে ভিজ্যুয়াল মার্কেটিং শুরু হবে। ইতোমধ্যে কিছু কিছু ক্ষেত্রে এটা চালু হলেও পৃথিবীর অনেক মানুষ এখন পর্যন্ত সুবিধাটি গ্রহণ করেনি। তবে ২০১৮ সালে এটা বেশ বিস্তৃতি লাভ করবে বলে ধারণা তাদের। তারা মনে করেন, ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে এটাই হতে পারে উৎকৃষ্ট উপায়।

সামনের বছর নাগাদ বাড়ির সব ডিভাইস-মেশিন নেটওয়ার্কের আওতায় চলে আসতে পারে এবং এটা অসম্ভব কিছু নয়। প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে ওয়ানের সহ-সভাপতি ব্র্যাডি ফরেস্ট অন্তত এমনটাই মনে করেন। তিনি বলেন, আমরা এমন এক অবস্থায় পৌঁছতে পারি, যেখানে ইন্টারনেট সংযোগ না থাকলে বাড়ির সব কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাবে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 49 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)