ঘুম থেকে ওঠার ঠিক ১ মিনিট পরে এক গ্লাস জল পান জরুরি কেন?

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 2nd May 17 at 10:55am 308
Googleplus Pint
ঘুম থেকে ওঠার ঠিক ১ মিনিট পরে এক গ্লাস জল পান জরুরি কেন?

ঘুমের পর এক গ্লাস জল আপনাকে কত রোগের হাত থেকে বাঁচাতে পারে জানেন? শুষ্ক ত্বক, মানসিক চাপ, সেলিব্রাল পেন, ক্লান্তি প্রভৃতি সব কিছুর থেকে মুক্তি মেলে এক গ্লাস জল পানের মধ্যে দিয়ে। শুধু তাই নয়, আরও বেশ কিছু শারীরিক সমস্যার সমাধান মিলতে পারে এই সহজ নিয়মটি মেনে চললে। যেমন...

এই প্রশ্নের উত্তর পাবেন, তবে তার আগে সকাল সকাল জল পান কেন জরুরি, সে সম্পর্কে আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের দিকে নজর ফেরানো যাক। ঘুম ভাঙার পর আমাদের শরীরের অন্দরে জলের মাত্রা একেবারে কমে যায়। তাই তো এই সময় জল না খেলে ডিহাইড্রেশন সহ একাধিক রোগ হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে শরীরে ভিতরে ঘাপটি মেরে থাকা একাধিক ক্ষতিকর টক্সিন বেরিয়ে যায়। ফলে রোগমুক্তি তো ঘটেই পাশপাশি শরীর চনমনেও হয়ে ওঠে। এখানেই শেষ নয়, খালি পেটে জল পানের আরও অনেক উপকারিতা আছে। চলুন জেনে নেওয়া সে সম্পর্কে।

১. হজম ক্ষমতা আরও ভাল হয়
সকাল সকাল এক গ্লাস জল খেলে, আগামী দেড় ঘন্টার মধ্যে হজম ক্ষমতা প্রায় ২৪ শতাংশ বেড়ে যায়। ফলে বদহজম বা ঐ জাতীয় রোগ হওয়ার রাস্তা একেবারে বন্ধ হয়ে যায়।

২. শরীরের সব বিষ বার করে দেয়
রক্তে জমে থাকা ময়লা এবং টক্সিক উপাদান শরীর থেকে বেরিয়ে যায় কিডনির মাধ্যমে। আর এই কাজটি সুন্দরভাবে করতে সাহায্য় করে এক গ্লাস জল। এবার বুঝতে পারছেন তো সকাল সকাল জল পানের অভ্যাস করার পক্ষে কেন সাওয়াল করেন চিকিৎসকেরা।

৩. ওজন কমাতে সাহায্য করে
একাধিক কেস স্টাডি করে দেখা গেছে সকাল সকাল আমাদের ক্ষিদে খুব বেড়ে যায়। ফলে অনেকেই মাত্রাতিরিক্তি খাবার খেয়ে ফলেন। ফলে ওজন বৃদ্ধির আশঙ্কা থাকে। এক্ষেত্রে সকাল উঠে যদি এক গ্লাস জল খেয়ে নেওয়া যায়। তাহলে বাড়তি খাওয়ার প্রবণতা অনেকটাই কমে। ফলে ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও হ্রাস পায়।

৪. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটে
ভাববেন না জল শুধু তেষ্টা মেটায়। সেই সঙ্গে আরও নানাভাবে শরীরের গঠনে সাহায্য করে। যেমন ধরুন, খালি পেটে জল খাওয়ার অভ্যাস করলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠে। ফলে নানাবিধ রোগ ভোগের আশঙ্কা প্রায় তলানিতে এসে ঠেকে।

৫. ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়
শরীরে যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে জল মজুত থাকে, তাহলে ত্বকের আদ্রতাও বৃদ্ধি পায়। ফলে স্কিন মসৃণ, নরম এবং তুলচুলে হয়ে ওঠে।

৬. শরীরের অন্দরে সব কাজ ঠিক মতো হতে থাকে
শরীরের অন্দরের নানা কল কবজাকে সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে জল। যেমন ধরুন, দেহে জলের ঘাটতি দেখা দিলে গাটে জমে থাকা অপরিষ্কার জলকে ব্য়বহার করে প্রয়োজনীয় সব কাজগুলি করে থাকে কোলোন। ফলে যা হওয়ার তাই হয়। নোংড়া জল শরীরে বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে যাওযার কারণে নানাবিধ রোগের প্রকোপ পৃদ্ধি পায়। তাই তো সকাল সকাল জল পানে কোনও খামতি রাখবেন না। তাহলেই দেখবেন শরীর যেমন চাঙ্গা হয়ে উঠবে, তেমনি হাজারো রোগের আক্রমণের হাত থেকেও রক্ষা পাবেন।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 18 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)