১ রুপির কয়েন দিয়ে ট্রেনে ডাকাতি! লুটের বিবরণ

সাধারন অন্যরকম খবর 27th Apr 17 at 12:37pm 434
Googleplus Pint
১ রুপির কয়েন দিয়ে ট্রেনে ডাকাতি! লুটের বিবরণ

দিল্লি-পটনা রাজধানী এক্সপ্রেসে একটি বড়সড় ডাকাতির ঘটনা ঘটে বিগত ৯ এপ্রিল।

মুগলসরাই জিআরপি এই ডাকাতির ঘটনায় অভিযুক্ত হিসেবে ৪ যুবককে গ্রেপ্তার করেছে দিন কয়েক আগে। তাদের জেরা করে ডাকাতির পদ্ধতি সম্পর্কে যে তথ্য পেয়েছে জিআরপি, তাতে বিস্ময়ে হতবাক রেলরক্ষী বাহিনীর অভিজ্ঞ কর্মীরাও।

জানা গিয়েছে, মাত্র ১ টাকার একটি কয়েনের সাহায্যেই ট্রেন লুঠ করেছিল ডাকাতরা। ৯ এপ্রিল মুগলসরাই-বক্সারের মধ্যবর্তী গহমর স্টেশনের কাছে মধ্যরাত্রে রাজধানী এক্সপ্রেসে ডাকাতরা হানা দেয়। এই ঘটনায় জিআরপি যে চার যুবককে গ্রেফতার করেছে, তাদের নিবাস বিহারের বক্সারে।

ডাকাতদলের নেতৃত্বে ছিল রাজা নামের এক যুবক। জিআরপি-র কাছে রাজা যা জানিয়েছে, তা থেকে জানা যাচ্ছে, বক্সারে রেল-ডাকাতির রীতিমতো ট্রেনিং দেয় সে। এবং তার প্রশিক্ষণের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ দিক হল, সে রেলের সবুজ সিগন্যালকে লাল করে দেওয়ার এক অভিনব কৌশল শিক্ষা দিতে পারে। কী সেই কৌশল?

রাজা জানিয়েছে, সে কেবল এক টাকার একটি কয়েনের সাহায্যেই রেলের সিগন্যালকে সবুজ থেকে লাল করে দিতে পারে। কিন্তু কী ভাবে? রাজা জানিয়েছে, রেল লাইনের দুটি অংশের জয়েন্টের মধ্যে বিশেষ কায়দায় একটি এক টাকার কয়েন গুঁজে দিলেই সবুজ সিগন্যাল নাকি লাল হয়ে যায়।

এই ব্যাপারে রাজার পারদর্শিতা অতুলনীয়। বক্সারে বহু ছাত্রই নাকি রাজার কাছে ট্রেন ডাকাতির ট্রেনিং নিতে আসে।

কিন্তু ঠিক কী ঘটেছিল ৯ এপ্রিলের মধ্য রাত্রে? রাজা পুলিশের কাছে জানিয়েছে, তিন জন সঙ্গীকে নিয়ে সে দিন গহমর স্টেশনের কাছে পৌঁছে দুটি লাইন-জয়েন্টের ফাঁকে একটি এক টাকার কয়েন গুঁজে দিলাম।

সঙ্গে সঙ্গে ট্রেনের সিগন্যাল সবুজ থেকে লাল হয়ে যায়। সিগন্যাল দেখে দাঁড়িয়ে যায় রাজধানী এক্সপ্রেস। তার পর দু’টি বগির মাঝের ফুটপ্লেট (এক কামরা থেকে অন্য কামরায় যাওয়ার রাস্তার নীচের অংশ) সরিয়ে আমরা কামরার ভিতরে ঢুকে পড়লাম। তখন ঘড়িতে সময় দেখাচ্ছিল রাত তিনটে।

অধিকাংশ যাত্রীই ঘুমোচ্ছিলেন। ফলে আমাদের ডাকাতি করতে তেমন অসুবিধা হয়নি। চারটি কামরায় লুঠপাট চালিয়ে যে পথে এসেছিলাম, সেই পথেই আবার পালিয়ে যাই আমরা।

রেলওয়ে পুলিশের সুপারইন্টেন্ডেন্ট কবীন্দ্র প্রতাপ সিংহ জানান, অভিযুক্তদের ধরা সহজ ছিল না। বছর খানেক আগেও মির্জাপুর-এ এই কায়দায় সিগন্যালের আলো বদলে ট্রেন ডাকাতি করেছিল রাজা।

ধরা পড়ে সাজাও খেটেছিল সে। এ বারও সিগন্যালে দাঁড়ানো ট্রেনে ডাকাতি হওয়ায় স্বভাবতই রাজার উপর সন্দেহ গিয়ে পড়ে। রাজার পাশাপাশি তার তিন সহযোগী, এবং লুঠের মাল যারা কিনেছিল তাদেরও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 19 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)