বৈশাখের আগে চুলের যত্ন

রূপচর্চা/বিউটি-টিপস 9th Apr 17 at 11:03pm 256
Googleplus Pint
বৈশাখের আগে চুলের যত্ন

দেখতে দেখতে চলে এলো সেই সময় যখন পুরাতনকে বিদায় জানিয়ে নতুনকে আগমনী ডালা নিয়ে বরণ করতে হয়। যাকে বলে নববর্ষ। বাংলা বছরের শুরুর দিন। যে দিনে বাঙালি নিজেকে সাজায় অপরূপ সাজে। আর তাদের চারপাশও সেজে উঠে বর্ণিল রঙে। লাল-সাদার পাশাপাশি বাকি রঙেরাও চুপটি করে বসে থাকতে চায় না। আর এই সাজের বেলায় কেশবতি নারীর কথা সবার মাথায় আগে আসে। পোশাকের পরেই যা নিয়ে মনে নানা প্রশ্ন উঁকি দেয় তা হচ্ছে চুল। চুল বাঁধার উপর আপনার সাজের অনেক কিছু নির্ভর করে। তাই এই বৈশাখের আগে চাই চুলের সঠিক যত্ন আর তার সাথে বৈশাখের দিনে পাওয়া আপনার মুখের মিষ্টি হাসি।

চুলের যত্নে এই বৈশাখের আগের দিনগুলোতে চাই সঠিক পরিচর্চা। এর জন্য আপনি এই বৈশাখের আগের কয়েকদিন নিয়মিত চুলে তেল লাগাতে পারেন। যাদের চুল কম তারা তেলের সাথে ক্যাস্টার ওয়েল মাখিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুল মজবুত হয়। এছাড়া আছে কিছু হেয়ার প্যাক যা চুলকে করবে সিল্ক আর সুন্দর।

ডিম এবং দুধের প্যাক এই ক্ষেত্রে বেশ উপকারি। একটি ডিম, এক কাপ দুধ, একটি লেবুর রস এবং দুই টেবিল চামচ অলিভ অয়েল। প্রথমে ডিম থেকে সাদা অংশ এবং কুসুম আলাদা করে ফেলুন। তৈলাক্ত চুলের ডিমের সাদা অংশ এবং নরমাল চুলের জন্য সম্পূর্ণ ডিম ব্যবহার করুন। ডিম ভালো করে ফেটে নিন। এরসাথে দুধ, অলিভ অয়েল এবং লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এবার এটি চুলে ম্যাসাজ করে লাগান। ১৫-২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

চুলে লাগাতে পারেন পাকা কলার প্যাক। যাতে থাকবে এক থেকে দুটি পাকা কলা, এক চামচ নারকেল তেল, এক চা চামচ অলিভ অয়েল এবং এক টেবিল চামচ মধু ভাল করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এটি চুলে ম্যাসাজ করে লাগিয়ে নিন। ১০-১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তারপর চুল পানি দিয়ে ফেলুন। আপনি চাইলে শ্যাম্পু করতে পারেন।

আধা কাপ টকদই, এক চা চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এবং এক চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। ১৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তারপর শ্যাম্পু করুন। দেখবেন চুল কেমন ঝলমলে হয়ে উঠেছে। এর পাশাপাশি খেতে পারেন শাকসবজি। এই শাকসবজির মধ্যে পালংশাকে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, আয়রন, বিটা ক্যারোটিন, ফোলেট ও ভিটামিন সি। মাথার ওপরের ত্বক ও চুলকে সুস্থ রাখতে এগুলো কাজ করে। এগুলো চুলের ময়েশ্চার ঠিক রাখে বলে তা সহজে ভাঙে না।

চুল রূপের একটি অন্যন্য উপাদান। চুলের সাজে আপনি খুব সহজেই পারেন নিজেকে নতুন করে নিজের মতো করে তুলে ধরতে। যুগে যুগে কবি সাহিত্যিকরা যেমন কবিতা গানে চুলের প্রশংসায় নানা কথা বলেছেন তেমনি আপনি আপনার চুলের এমন কথা শুনতে চাইলে আজ থেকেই চুলের যত্ন নিন।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 18 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)