আপনার ভাই কিংবা বোন প্রেম করলে তাদের যে টিপসগুলো দিতে পারেন

লাইফ স্টাইল 11th Feb 17 at 1:42pm 1,135
Googleplus Pint
আপনার ভাই কিংবা বোন প্রেম করলে তাদের যে টিপসগুলো দিতে পারেন

ভাই-বোনেদের সম্পর্কটাও হয় বাবা-মায়ের সঙ্গে সম্পর্কের তুলনায় একটু আলাদা। এমন অনেক কথাই ভাই-বোনের সঙ্গে শেয়ার করা চলে, যা বাবা বা মা-কে বলার কথা ভাবাও যায় না। তেমনই একটা শেয়ার করার মতো বিষয় হল প্রেমের খবর। আপনার ভাই বা বোন যদি কারও সঙ্গে প্রেম করে, তবে মোটামুটি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন যে পরিবারে সেই খবর সে আপনাকেই সবার আগে বলবে।

কিন্তু বিষয়টা সম্পর্কে জানার পরে আপনি কী করবেন? কী বলবেন তাকে? আপনার কি রাগারাগি করা উচিত? গাইড হিসেবে আপনার কী করণীয়? জেনে নিন এই টিপসগুলো:

১. প্রথমেই তাকে একটা বিষয়ে নিশ্চিন্ত করুন যে, কোনো রকম বিপদ-আপদের আশঙ্কা না দেখলে তাকে প্রেম করতে কোনো বাধা আপনি দেবেন না। প্রেমের ক্ষেত্রে তার নির্বাচনকে আপনি যে মর্যাদা দিচ্ছেন সেটা তাকে বুঝতে দিন।

২. নিজের সঙ্গী বা সঙ্গিনী হিসেবে সে যাকে বেছে নিয়েছে, সে সত্যিই তার উপযু্ক্ত কি না তা জানা অত্যন্ত জরুরি। প্রয়োজন হলে তার নির্বাচিত মানুষটির সঙ্গে আপনি নিজে দেখা করুন। আপনার বিবেচনা বোধ থেকেই আপনি নিশ্চয়ই বিচার করবেন সেই মানুষটিকে। কিন্তু তাই বলে নিজস্ব বিচার জোর করে নিজের বোন বা ভাইয়ের উপর চাপিয়ে দেবেন না। তার অনুভূতির কথাটাও মাথায় রাখুন।

৩. প্রেমে সাফল্যের ক্ষেত্রে একেবারে অপরিহার্য। টিপস দেওয়ার সময়ে সে কথা মনে করিয়ে দিন নিজের সহোদর বা সহোদরাকে। প্রেমের লক্ষ্য অর্জনের জন্য সে যেন তাড়াহুড়ো না করে অযথা।

৪. তাড়াহুড়া করবে না ঠিকই, কিন্তু তা বলে এটাও যেন না ভাবে যে, তার পছন্দের মানুষটি তার মুখ থেকে ভালবাসার কথা শুনবার জন্য অনন্তকাল অপেক্ষা করে থাকবে। কাজেই হতাশ হয়ে তার মুখ ফেরানোর আগেই মনের কথাটা তাকে বলে দেওয়া জরুরি।

৫. প্রেমে পড়ার পরে প্রথম প্রথম দামি দামি গিফট দিয়ে মেয়েদের ইমপ্রেস করার একটা প্রবণতা থাকে ছেলেদের। সেই বিষয়ে সংযত করুন নিজের ভাইটিকে। ভালবাসা পাওয়ার জন্য বিশুদ্ধ প্রেমই যথেষ্ট। তার জন্য দামি উপহারের আবশ্যকতা নেই কোনো। আর যদি কোনো মেয়ে দামি গিফটের জন্যই হাপিত্যেশ করে বসে থাকে, তা হলে সে কারো প্রেমিকা হওয়ার উপযুক্ত নয়। এ কথা বোঝান নিজের ভাইকে।

৬. প্রেম মানেই এক ভুবনভোলানো অনুভূতি। তাতে কয়েকটা দিন দৈনন্দিন কাজেকর্মে বিঘ্ন ঘটতেই পারে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে পড়শোনা কাজকর্ম সব লাটে উঠবে। এই বিষয়টি মনে করিয়ে দিন নিজের আদরের বোন বা ভাইটিকে।

৭. প্রেমের ক্ষেত্রে আপনার নিজের অভিজ্ঞতা আপনার ভাই বা বোনের থেকে কিঞ্চিৎ বেশি হওয়ারই কথা। কাজেই ভালবাসার জমিতে নিজে যেটুকু ঠিক পদক্ষেপ ফেলেছেন, কিংবা যে হোঁচটগুলো খেয়েছেন, সেগুলোর অভিজ্ঞতা শেয়ার করুন ভাই বা বোনের সঙ্গে। আপনার অভিজ্ঞতা তার প্রেমের সহজপাঠ হয়ে উঠুক।

৮. আপনার ভাই বা বোনের প্রেম-পিরিতকে আপনি যতটা সহজ ভাবে নিচ্ছেন, বাবা-মা কিন্তু ততটা সহজ ভাবে না-ও নিতে পারেন। কাজেই বাড়িতে বাবা-মার দিক থেকে কোনো বাওয়াল হলে আপনিই সামলাবেন, এমন ভরসা দিন ভাই বা বোনকে।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 16 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)