মার্কিন প্রযুক্তি খাতে লিঙ্গবৈষম্য

বিবিধ টেক 9th Nov 16 at 10:02am 936
Googleplus Pint
মার্কিন প্রযুক্তি খাতে লিঙ্গবৈষম্য

প্রযুক্তি খাতে কর্মী নিয়োগ প্লাটফর্ম 'হায়ারড'-এর সংগৃহীত ডেটায় দেখা যায়, একই ধরনের কাজে যুক্তরাষ্ট্রে পুরুষ কর্মীদের চেয়ে নারী কর্মীরা আট শতাংশ কম পারিশ্রমিক পাচ্ছেন। যুক্তরাজ্যে এই পার্থক্যটা নয় শতাংশ, কানাডায় সাত শতাংশ আর অস্ট্রেলিয়ায় পাঁচ শতাংশ।

হায়ারড প্রায় তিন হাজার প্রার্থীর ১০ হাজার প্রস্তাব বিশ্লেষণ করে এত ডেটা প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি। এই তথ্য বেতনের ক্ষেত্রে লিঙ্গবৈষম্য দূর করতে সহায়তা করবে বলে আশা প্রকাশ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

নিজেদের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানটি বলে, "আমাদের আশা হচ্ছে এ ধরনের ডেটা শেয়ার করার মাধ্যমে আমরা এই বিষয়টির দিকে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারব, প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের বেতন-ভাতা দেওয়া নীতিমালা খতিয়ে দেখতে উৎসাহ দিতে পারব, আর নারীদের নাজার অনুযায়ী তাদের বেতন পেতে ক্ষমতায়ন করতে পারব।"

প্রতিবেদনে আরও দেখা যায়, মাঝারি আকারের প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে বেতনের এই পার্থক্য সবচেয়ে বেশি। ২০১ থেকে ১০০০ জন কর্মী রয়েছে এমন প্রতিষ্ঠানে পুরুষ আর নারী কর্মীর মধ্যে বেতনের পার্থক্য ১৭ শতাংশ।

আর পদের ক্ষেত্রে, প্রযুক্তি খাতে বিক্রয় বিভাগে কাজ করা নারীরা তাদের পুরুষ সহকর্মীদের তুলনায় পাঁচ শতাংশ কম বেতন পান, আর সফটওয়্যার প্রকৌশলীদের ক্ষেত্রে পার্থক্যটা হয়ে যায় নয় শতাংশ।

প্রতিষ্ঠানটির ইনসাইটস ম্যানেজার জেসিকা কার্কপ্যাট্রিক বলেন, "বেতন-ভাতার ক্ষেত্রে নারীরা নিজেদের অবমূল্যায়ন করছে; সমানভাবে, তারা তাদের চাওয়া অর্থের চেয়ে কম পরিমাণ বেতনের প্রস্তাব পেলেও তা গ্রহণ করছে।" এই বৈষম্য দূরকরায় প্রতিষ্ঠানগুলোতে অভ্যন্তরীণভাবে স্বচ্ছ পদোন্নতি ও বেতন নীতি তৈরি করা উচিৎ বলে পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 37 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)