W-The Two Worlds (2016) – ভিন্নধর্মী রোমাঞ্চ কাহিনী-চিত্রায়ন নিয়ে সময়ের সাড়া জাগানো কোরিয়ান ফ্যান্টাসি ড্রামা সিরিজ

মুভি রিভিউ 24th Sep 16 at 10:59am 1,434
Googleplus Pint
W-The Two Worlds (2016) – ভিন্নধর্মী রোমাঞ্চ কাহিনী-চিত্রায়ন নিয়ে সময়ের সাড়া জাগানো কোরিয়ান ফ্যান্টাসি ড্রামা সিরিজ

মাঝে গোটা চারেক নব্য কোরিয়ান ড্রামা সিরিজ দেখা শুরু করে দুই-তিন পর্ব পরেই ছেড়ে দিয়েছিলাম। যেখানে নায়ক-নায়িকার মধ্যে শুধু পিনপিনে প্রেম কাহিনীর সম্ভাবনা,আর বাদবাকি সব মিনমিনে- দুর্বল- অনুমেয় প্লট লাগলে সে ড্রামা সিরিজ কেমন আকর্ষণ হারায় না? অতঃপর একটি নব্য ড্রামা সিরিজ তার ফ্যান্টাসি প্লট- কাহিনী গুণেই হুকড করেছিল বলা চলে- যার নাম- W(2016)







ড্রামার নায়ক খাং ছল- সে কোরিয়ার জনপ্রিয় ওয়েবটুন (만화) বা কমিকস “W” এর প্রধান চরিত্র। সেই কমিকসের স্রষ্টা ও-সং-মু একসময় আবিষ্কার করেন, তিনি চাইলেও তার কমিকসের নায়ককে মেরে ফেলে ইতি টানতে পারছেন না! কারণ খাং ছলের মাঝে সত্যিকারের ব্যক্তিসত্তা তৈরি হয়েছে, কমিকসের মাঝেই চারপাশের মানুষকে নিয়ে তৈরি হয়েছে তার নিজস্ব পৃথিবী। একসময় নিখোঁজ বাবার খোঁজ করতে গিয়ে ও-সং-মু-র মেয়ে সার্জন ও-ইয়ন-জু ঘটনাচক্রে সেই কমিকসের দুনিয়ায় চলে যায়-শুরু হয় দুই পৃথিবীর গল্প। এমনই ভিন্ন ধারার রহস্য-রোমাঞ্চ-কমেডি-রোমান্স-অ্যাকশন কাহিনী নিয়ে আবর্তিত হয়েছে জং-দ্যা-ইউন পরিচালিত “W-The Two Worlds” ড্রামা সিরিজটি।





যেমন শুনেছিলাম,প্রায় প্রতিটা পর্বেই ছিল আনপ্রেডিক্টবল ব্যাপার আর টুইস্টের ছড়াছড়ি- এই চমক রাখার চেষ্টার জন্য কাহিনীকার সং জ্যা-জং অবশ্যই-অবশ্যই বিশেষ ক্রেডিট পাওয়ার দাবিদার! যদিও তৃতীয়-চতুর্থ পর্বের দিকেই নায়ক-নায়িকার মধ্যে কিঞ্চিৎ ইনটেন্স দৃশ্যের আবির্ভাব শুরু হওয়া একটু আরোপিত-ই মনে হয়েছিল- রয়েসয়ে দেখালে ফ্যান্টাসির মাঝেও বিশ্বাসযোগ্যতা আসে-awkward লাগে না আর কী! আর কয়েকটি পার্শ্বচরিত্র- নায়িকার মা বা ডাক্তার বন্ধু, এমনকি কখনো বা দ্বিতীয় নায়িকাও বেশ অবহেলিত ছিল [দরকারে আসা- অদরকারে পুরো হাওয়া!] এরকম হালকা-পাতলা কিছু flaw দৃশ্যমান ছিল বলাই চলে।





তবে মোটের উপর বেশ আচ্ছন্ন করে রাখার মত ফ্যান্টাসি গল্প ছিল “W”। বিশেষ করে থ্রিলারের ঝাঁঝে শেষের দিকের এপিসোডগুলোতে দর্শকদের এক ধরনের উৎকণ্ঠার মধ্যেই থাকতে হয়েছে।







আর সবচেয়ে গর্জিয়াস ব্যাপার ওয়েবটুন- কমিকসের দুনিয়ায় যে বাস্তবধর্মী ঘটনাগুলো ঘটছে , পরক্ষণেই তা রিয়েল ওয়ার্ল্ডের কমিকসের পাতায় ভেসে উঠছে! এছাড়া যাবতীয় অবাস্তব বিষয়গুলোকেও যুক্তি দিয়ে যাচাইয়ের চেষ্টা-র ব্যাপারটিও ভালো লাগার মত ছিল।





এবার নায়ক-নায়িকা-র কথা বলতে- প্রথমেই আসি ওয়েবটুনের নায়কের কথায়- খাং ছল চরিত্রটি রূপদান করেছেন লি জোং সক [이 종 석-Lee Jong-Suk]।এর আগে তারই এক ড্রামা সিরিজ “Pinocchio” দেখা শুরু করে শেষ করা হয় নি, তার অভিনীত ও দেখা দুই-তিনটি মুভিতেও আহামরি কিছু লাগে নি/তেমন চরিত্র পান নি! কিন্তু এই ড্রামা সিরিজটির কথা আলাদা- প্রায় প্রথম থেকেই তিনি যেন কমিকস থেকে উঠে আসা নায়ক হয়ে গেছেন- যাকে এপিসোড ৫ থেকে মায়াবী ,শেষের দিকের এপিসোডগুলোতে বেশ চার্মিং লেগেছে বলতেই হয়! O:) “W”-ড্রামার কাহিনীকারও তার মনের মত “খাং ছল” চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলার জন্য লি জোং সক-কে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।





এবার নায়িকা- সার্জন ও-ইয়ন-জু-র চরিত্রে অভিনয় করেছেন হান হিয়ো জু- যিনি বিখ্যাত সব মুভি Always (2011), Masquerade (2012), Cold Eyes(2012) থেকে শুরু করে Postman to Heaven(2008),Love 911 (2012),Adlib Night (2006),Beauty Inside(2015)-ইত্যাদির গুণী নায়িকা। তবে তার সাত-সাতটা মুভি দেখেও “W(2016)”ড্রামা দেখতে গিয়ে যেন ঠিক চিনতে পারে নি! পরে নিরীক্ষা করে মানে তার আগের মুভি/কাজগুলোর সাথে মিলিয়ে দেখলাম-মূলত মেকআপ আর সাথে সময়ের ভ্যারিয়েশনে-ই তার চেহারা-য় খানিকটা করে রূপবদল ঘটতে থাকে! বিশেষ করে তার পুরনো ছবি বা বিজ্ঞাপন-এর সাথে “Always” কি “W”-তে রূপায়িত চেহারার সাদৃশ্য খুঁজে পেতে খোদ কোরিয়ানদেরই বেগ পাওয়ার কথা! যাক,এসব শিবের গীত বাদ দিয়ে বলতে হয়, সাহসী-সুন্দরী নায়িকার রোল নিয়ে একই সাথে ইমোশন আর কমেডি-ভাব ফুটিয়ে তোলার [এবং শুটিং টিমের চিয়ারলিডারের!] দায়িত্বটি ভালোই পালন করেছেন এই মাল্টি-ট্যালেন্টেড অভিনেত্রী। তাই ছয় বছর পর ছোটপর্দায় প্রত্যাবর্তনের জন্য “W”-র মত হাই কোয়ালিটি-র ড্রামা-কে বেছে নেয়াও উপযুক্ত সিদ্ধান্ত মনে হয়েছে।





নায়ক-নায়িকা-র জুটির ভালো রসায়নও দর্শকদের কাছে শেষ পর্যন্ত ভালোই গ্রহণযোগ্যতা লাভ করেছে।





আর একটি বড় চরিত্র- কমিকসের ক্রিয়েটর আর কিলার- দুই চরিত্রে-ই সমান পারদর্শিতা নিয়ে অভিনয়ের দায়িত্ব পালন করেছেন কিম উই সং।





১৬ টি এপিসোডের এই ড্রামাটি থ্রিলার-ফ্যান্টাসির গুণে তুমুল জনপ্রিয়তা পাওয়ায় মূল ড্রামাটি প্রচার শেষে ১৭ তম পর্ব হিসেবে প্রচারিত হয় একটি স্পেশাল এপিসোড-Unfinished Story [끝나지 않은 이야기] – যেখানে ড্রামা নির্মাণের পেছনের বেশ কিছু কাহিনী উঠে এসেছে। একদিকে আঁকিয়েদের বিশেষ টিম ড্রামার চিত্রায়ন মিলিয়ে কমিকস ড্রয়িং এর কাজ করেছেন, অন্যদিকে MBC-র কলাকুশলীরা গ্রাফিকসের

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 75 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)