চার মুম্বাইয়া বন্ধুর অসাধারণ ব্যবসা যেসব কারণে ধরা খেতে লাগল

বন্ধু কৌতুক 17th Jul 16 at 9:04pm 1,221
Googleplus Pint
চার মুম্বাইয়া বন্ধুর অসাধারণ ব্যবসা যেসব কারণে ধরা খেতে লাগল

চার মুম্বাইয়া বন্ধু ঠিক করল, তারা ব্যবসা করবে। কিন্তু কী ব্যবসা করবে? অনেক ভাবনা-চিন্তার পর ঠিক হলো, তারা একটি পেট্রলপাম্প খুলবে। গ্রামে নিজেদের পৈতৃক জমি বিক্রি করে সেই টাকায় মুম্বাই শহরতলিতে একটা পেট্রলপাম্প খুলেই ফেলল তারা। বিশাল সাইনবোর্ড লাগাল পেট্রলপাম্পের সামনে। কিন্তু কী আশ্চর্য, কোনো খদ্দের গাড়ি নিয়ে পেট্রল নিতে এল না। কেন? কেননা, পাম্পটি খোলা হয়েছিল একটি বহুতল ভবনের একতলায়। গাড়ি উঠবে কী করে সেখানে?

ওই চার বন্ধুই আবার রেগে গিয়ে পাম্পটি বন্ধ করে দিল। কিন্তু ব্যবসা তো করতে হবে। তাই তারা পেট্রলপাম্পের পরিবর্তে একই জায়গায় একটি রেস্টুরেন্ট দিল। কাবাব, তন্দুরি থেকে শুরু করে সবই ওই রেস্টুরেন্টে পাওয়া যায়। কিন্তু কোনো খদ্দের রেস্টুরেন্টে খেতে এল না। কেন? কেননা, ওই চার বন্ধু পেট্রলপাম্পের সাইনবোর্ডটি তখনো খুলতে ভুলে গিয়েছিল।

পেট্রলপাম্পের সাইনবোর্ড না খোলা নিয়ে চার বন্ধু একে অপরকে দোষ দিতে লাগল। তারপর ঠিক হলো, তারা অন্য ব্যবসা করবে। কিন্তু কী ব্যবসা করবে? ঠিক হলো, একটি ট্যাক্সি কিনে শহরে চালাবে তারা। নতুন ঝাঁ চকচকে ট্যাক্সিও কেনা হলো। তারপর মুম্বাইয়ের রাস্তায় তারা নেমেও পড়ল ট্যাক্সি নিয়ে। কিন্তু কোনো যাত্রী তাদের ট্যাক্সিতে চড়তে চাইল না।
কেন?
কী করে চড়বে। দুই বন্ধু ট্যাক্সির সামনে আর দুজন ট্যাক্সির পেছনের আসনে বসে থাকে সব সময়। যাত্রী বসবে কোথায়?


চার বন্ধু ভুলটা বুঝতে পারল। কিন্তু কে নামবে আর কে চালাবে, ঠিক করতে পারল না তারা। হঠাৎ তাদের ট্যাক্সি বিকল হয়ে গেল রাস্তার মাঝখানে। পথচলতি এক ব্যক্তি বলল, ‘দাদা, একটু ট্যাক্সিটাকে ধাক্কা দিন, স্টার্ট হয়ে যাবে।’ লোকটার কথা শুনে চার বন্ধু ট্যাক্সিটাকে ধাক্কা দিতে লাগল। কিন্তু এক ইঞ্চিও নড়ল না ট্যাক্সিটা।
কেন?
কেননা, দুই বন্ধু সামনে থেকে পেছনে, আর দুই বন্ধু পেছন থেকে সামনের দিকে ধাক্কা মারলে কি ট্যাক্সি নড়ে?


চার বন্ধুই এবার বুঝতে পারল, আর যা-ই হোক, ব্যবসা তাদের দিয়ে হবে না। কিন্তু কিছু তো করতে হবে। এদিকে টাকাও শেষ। কী করবে চিন্তা করতে লাগল তারা। জরুরি বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিল, অপহরণ কারবারে কোনো লগ্নি করতে হয় না। কাজেই এটাই তাদের পেশা হতে পারে।

হঠাৎ একজনের চোখ পড়ল পাঁচ বছরের এক স্কুলফেরত বালকের দিকে। তাকেই অপহরণ করা হলো। বালকটির বাবার মুঠোফোনে তারা জানাল, তারা তার ছেলেকে অপহরণ করেছে। মাত্র এক লাখ টাকা পেলেই ছেড়ে দেবে তার ছেলেকে। বালকটির বাবা রাজি হলো। রাজি হতেই চার বন্ধু বালকটিকে বলল, ‘যাও, তোমার বাবার কাছ থেকে অপহরণের এক লাখ টাকা নিয়ে এসো।’

বালকটি চলে যেতেই চার বন্ধুর মধ্যে ঝগড়া লেগে গেল। একে অপরকে দোষ দিতে লাগল। বালকটিকে ছেড়ে দিলে কী আর অপহরণের টাকা পাওয়া যায়! একটু ভুলের জন্য এক লাখ টাকা ফসকে গেল। এমন ভাবতে ভাবতেই চার বন্ধু হঠাৎ দেখল, ওই বালকটি ফিরে আসছে। তার বাবা জমি বিক্রি করে একটি থলেতে ভরে এক লাখ টাকা ছেলে মারফত পাঠিয়েছে।

কেন বালকটির বাবা এমন ভুল করল? কেননা, বালকটির বাবাও ওই একই গোত্রের লোক।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 20 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)